কলকাতা 

মমতার ভরা স্টেডিয়ামে কেন অনুপস্থিত অধিকারীরা ? তাল কাটছে কি তৃণমূলের ?

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক :  পুরভোটের মুখে প্রশান্ত কিশোরের উদ্যোগে কলকাতার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে তৃণমূল কংগ্রেসের যে সাংগঠনিক বৈঠক হয় , সেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বাছাই করা কর্মীদের ডাকা হয়েছিল। সেই বাছাই করা কর্মীদের ভিড়ে মমতা ভাষণ দেন। দলের পথ-নির্দেশ করে দেন। জনসংযোগের নতুন স্লোগান বাংলার গর্ব মমতা-র সূচনা হয়।

কিন্ত বিস্ময়ের ব্যাপার হল এই সভায় হাজির ছিলেন না পূর্রব মেদিনীপুরের অধিকারী পরিবারের কেউ। শুভেন্দু অধিকারী শুরু করে সবাই ছিল অনুপস্থিত। কেন এই অনুপস্থিত অধিকারীরা ? সেই প্রশ্নই এখন রাজ্য-রাজনীতিতে আলোচনার বিষয় হয়ে উঠেছে। জানা গেছে ,নেতাজি ইন্ডোরের অনুষ্ঠানের আগে ক্ষুদিরাম অনুশীলন কেন্দ্রে তৃণমূল বিধায়কদের বৈঠকেও ছিলেন না শুভেন্দু।

কাঁথির সাংসদ তথা জেলা তৃণমূল সভাপতি শিশিরবাবু ও তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু সংসদের অধিবেশনে যোগ দিতে দিল্লি গিয়েছেন। আর সৌমেন্দু সকাল থেকে কাঁথি পুরভবনেই ছিলেন। তবে শুভেন্দু জেলায় ছিলেন না বলেই তৃণমূল সূত্রে খবর। তমলুকের নিমতৌড়িতে প্রয়াত বিপ্লবী সুশীল ধাড়ার জন্মদিবস উদ্‌যাপনের উদ্বোধনেও এ দিন আসেননি শুভেন্দু। দিল্লি থেকে শিশিরবাবু বলেন, ‘‘আমি ও দিব্যেন্দু সংসদের অধিবেশনে যোগ দিতে আজই ভোরে বেরিয়ে দিল্লি চলে এসেছি। শুভেন্দু গত কাল মুর্শিদাবাদে সভা করেছেন। আজও মুর্শিদাবাদে সভা করে মালদহে যাবেন। মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক বৈঠকে যোগ দেবেন। দলনেত্রী সব জানেন।’’ যদিও মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল সূত্রে খবর, রবিবার দলীয় কর্মসূচিতে শুভেন্দু হাজির থাকলেও এ দিন তাঁর কোনও কর্মসূচি ছিল না।

কিন্তু পুরভোটের মুখে নতুন জনসংযোগ কর্মসূচির ঘোষণায় কেন ছিলেন না কাঁথির পুরপ্রধান? সৌমেন্দুর বক্তব্য, ‘‘শারীরিক অসুস্থতার কারণে দলনেত্রীর কর্মসূচিতে যেতে পারিনি। এ ব্যাপারে উচ্চ নেতৃত্বকে আগে জানিয়ে দিয়েছিলাম।’’

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment