কলকাতা 

কলকাতার বাইরে শোভন! পদ্মফুলে শোভিত ‘‘শোভনদা তোমাকে পেয়ে আমরা সার্থক’’ ব্যানারে ছেয়ে গেল বেহালা , অমিতের সভার দিনে এই ব্যানারে জোর চর্চা রাজনৈতিক মহলে

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ব্যক্তিগত কাজে কলকাতার বাইরে আছেন প্রাক্তন শোভন চট্টোপাধ্যায় । আর কলকাতায় আসছেন বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি ও দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ । শহিদ মিনারে তাঁর সভা । কিন্ত সভার দিন রবিবার সকাল থেকেই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের নামে এবার বেহালায় ব্যানার পোষ্টারে ছেয়ে গেল ।তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে এ বার ব্যানারগুলোয় লেখা হয়েছে, ‘‘শোভনদা তোমাকে পেয়ে আমরা সার্থক।’’

শনিবার রাত থেকেই গোটা বেহালা পূর্ব এবং বেহালা পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্র ছেয়ে গিয়েছে শহরের প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের নামে অজস্র ব্যানারে। আগের বারের মতো এ বারও তাতে রয়েছে শোভনের ছবি এবং বিজেপির প্রতীক। তা়ৎপর্যপূর্ণ ভাবে রবিবার, যে দিন অমিত শাহ কলকাতায় আসছেন, তার ঠিক আগের রাতেই শোভনের খাস তালুক বেহালা জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে এই ব্যানারগুলো। তারাতলা থেকে বেহালা থানা পর্যন্ত গোটা রাস্তায় এবং জেমস লং সরণি জুড়ে ওই নতুন ব্যানার লাগানো রয়েছে। শোভন নিজে যে কেন্দ্রের বিধায়ক, সেই বেহালা পূর্ব এবং তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কেন্দ্র, বেহালা পশ্চিম— এই দুই এলাকাতেই ওই ব্যানার চোখে পড়েছে। ব্যক্তিগত কাজে শোভন যখন কলকাতার বাইরে, সে সময় ফের কারা তাঁর নামে এই ব্যানার ছড়িয়ে দিল, তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক শিবিরে।

গত মাসে শোভনের ছবি এবং বিজেপির প্রতীক সম্বলিক শ’দেড়েক ব্যানারে রাতারাতি ছেয়ে গিয়েছিল দক্ষিণ কলকাতার বিভিন্ন রাস্তা। এ বার ব্যানারের সংখ্যা বেড়েছে । বেহালা জু়ড়ে আড়াইশোর মতো ব্যানার পড়েছে। আগের বার কোনও ব্যানার জুড়ে বার্তা দেওয়া ছিল, ‘‘কলকাতার বেহাল দশাকে পুনরায় স্বমহিমায় ফিরিয়ে আনতে আপনি এগিয়ে আসুন শোভনদা।’’ আবার কোনও ব্যানারে লেখা ছিল, ‘‘অসম্পূর্ণ কলকাতার পৌরসভাকে পুনরায় স্বমহিমায় আনতে ফিরে আসুন শোভনদা।’’ এ বার ব্যানারে লেখা হয়েছে, ‘‘পৌর উন্নয়নের পথ প্রদর্শক শোভনদা তোমাকে পেয়ে আমরা সার্থক।’’

এর আগের বার কারা ওই ব্যানার লাগিয়েছিলেন, তার কোনও স্পষ্ট উত্তর মেলেনি। শোভন-শিবির বলেছিল, তারা জানেন না, কারা ওই ব্যানারগুলো লাগিয়েছেন। অন্য দিকে, বিজেপি নেতৃত্বও বলেছিলেন, তাঁরাও এ বিষয়ে কিছু জানেন না। যদিও সে সময় বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন, দক্ষিণ কলকাতার বিজেপিকর্মীরাও ওই ব্যানার লাগাতে পারেন। তবে গত বারের মতো এ বারও ব্যানার কারা লাগিয়েছেন, তা জানা যায়নি।

এ বিষয়ে কলকাতার বাইরে থাকায় বৈশাখী বা শোভন— কারও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। বিজেপি নেতৃত্বও জানাচ্ছেন, দলের নির্দেশে এই ব্যানার লাগানো হয়নি। তবে আগের বারের মতো এ বারও এই ব্যানার নিয়ে কোনও বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেননি বিজেপি নেতারা।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment