কলকাতা 

তৃণমূলকে অনুসরণ করেই পুরনির্বাচনের আগে ‘বিজেপিকে বলো’ কর্মসূচি চালু করতে চলেছেন দিলীপ-মুকুলরা

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : মমতাকেই অনুসরণ করছে বিজেপি । তৃণমূলের ‘দিদিকে বলো’কর্মসূচির পাল্টা হিসাবে বিজেপি ‘বিজেপিকে বলো’ কর্মসূচি চালু করতে চলেছে।পুর- নির্বাচনের আগে সব পুরসভার দূর্নীতি জানতে টোল ফ্রি নম্বর চালু হচ্ছে। সেখানে এলাকার মানুষ ফোন করে তূণমূল পরিচালিত পুরসভার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে পারবে। সেই অভিযোগগুলোই নির্বাচনী প্রচারে হাতিয়ার করবে বিজেপি।লোকসভা ভোটে ধাক্কার পর ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের দ্বারস্থ হয়েছিল তৃণমূল। পিকের নির্দেশেই ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি শুরু করেছিল তারা৷ কংগ্রেস। এবার শাসক দলের দেখানো পথেই তাদের ঘায়েল করার পরিকল্পনা করছে বিজেপি৷

পুরভোটের প্রস্তুতি নিয়ে শুক্র-শনি, দুদিন বৈঠক ছিল রাজ্য বিজেপির৷ শেষদিন অর্থাৎ শনিবার কলকাতায় আইসিসিআর অডিটোরিয়ামে দলের সাংসদ, বিধায়ক, জেলা সভাপতি ও রাজ্য পদাধিকারীদের নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করে গেরুয়া শিবির। উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপির দুই কেন্দ্রীয় নেতা শিবপ্রকাশ ও অরবিন্দ মেনন, রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, রাহুল সিনহা, নির্বাচনী ম্যানেজমেন্ট কমিটির আহ্বায়ক মুকুল রায়, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরি প্রমুখ। কোন পুরসভার কী পরিস্থিতি রয়েছে, সেখানকার দলের সাংসদদের বিশেষ দায়িত্ব দেওয়া, প্রতিটি পুরসভার নির্বাচনী কমিটি করা-এসব বিষয় নিয়েই এদিন আলোচনা হয়।

সেখানেই সিদ্ধান্ত হয়েছে, শীঘ্রই আনা হবে টোল ফ্রি নম্বর। বিভিন্ন পুরসভার কাজকর্ম,দুর্নীতি, পরিষেবার অভাব ইত্যাদি ওই নম্বরে জানাতে পারবেন সাধারণ মানুষ। পুরভোটের প্রস্তুতিতে সাধারণের অভাব-অভিযোগ কাজে লাগবে। এতে ভালো সাড়া মিলবে বলে আশা বিজেপি নেতৃত্বের। রাজ্যের প্রতিটি পুরসভার জন্য আলাদা আলাদা ইস্তাহার প্রকাশের পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য বিজেপির। রাজ্যস্তরে একটি ইস্তাহারও প্রকাশ করা হবে।

আসন্ন পুরভোটের জন্য ৫৭ জনের কমিটি গঠন করেছে বিজেপি। ওই কমিটির নেতৃত্ব থাকছে মুকুল রায়ের হাতে। তাঁকেই করা হয়েছে আহ্বায়ক। মুকুলের ডেপুটি হয়েছেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় সিং। উল্লেখযোগ্যভাবে নাম রয়েছে রাহুল ঘনিষ্ঠ রীতেশ তিওয়ারির। শ্রীরামপুরের পুরভোটের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে রীতেশকে। কমিটিতে রয়েছেন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী ও বাবুল সুপ্রিয়। এর পাশাপাশি আছেন রাজ্যের ১৮ জন সাংসদ। তৃণমূল থেকে আসা বিধায়করাও রয়েছেন কমিটিতে।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment