দেশ 

১৬ বছর জেলে থেকেও চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্নপূরণ করলেন যুবক! কীভাবে করলেন অসাধ্য সাধন জানতে হলে ক্লিক করুন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ছোটবেলায় স্বপ্ন দেখেছিলেন ডাক্তার হওয়ার । সেই স্বপ্ন নিয়ে শুরু করেছিলেন পড়াশোনা । কিন্ত হঠাৎ ঘটনাচক্রে খুনের মামলায় অভিযুক্ত হয়ে গ্রেফতার হন । সেটা ২০০২ সাল । অভিযুক্ত হওয়ায় যাবজ্জীবন কারাবাসের শাস্তি পেয়েছিলেন । কিন্ত ভাল কাজের জন্য ১৪ বছরের মাথায় তাঁকে জেল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় । ২০১৬ সালে জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর আবার পড়াশোনা । অবশেষে ২০১৯ সালে ৪০ বছর বয়সে এমবি্বিএস পাশ করলেন । লোকটির নাম সুভাষ পাটিল । বাড়ি কর্ণাটকের আফজলাপুরায় ।

ঘটনার বিবরণে জানা যায় ,ছোটবেলা থেকেই চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন ছিল সুভাষের। ১৯৯৭ সালে এমবিবিএস পড়া শুরু করেন। তবে সেই পড়াশোনায় ছেদ পড়ে ২০০২-এ। একটি খুনের মামলায় তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সে সময় এমবিবিএস কোর্সের তৃতীয় বর্ষে ছিলেন সুভাষ। ২০০৬-এ ওই মামলায় আজীবন কারাবাসের সাজা পেলেও ভাল আচরণের জন্য জেল থেকে ছাড়া পান ২০১৬-তে। জেলে থাকাকালীনই সেখানকার হাসপাতালের বহিরাগত বিভাগে কাজ শুরু করেছিলেন সুভাষ। তাঁর কথায়, ‘‘জেলের ওপিডি-তে কাজকর্ম করার সময় ভাল আচরণের জন্য ২০১৬-র স্বাধীনতা দিবসে ছাড়া পাই। এর পর ২০১৯-এর এমবিবিএস কোর্স শেষ করি।’’

গত মাসে নিজের পড়াশোনা শেষ করেছেন সুভাষ। এর পর ডিগ্রি হাসিলের জন্য বাধ্যতামূলক এক বছরের ইন্টার্নশিপ শুরু করেন। চলতি মাসে তার মেয়াদ ফুরোতে চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পুরোদস্তুর সফল করলেন সুভাষ।

সুভাষের অদম্য ইচ্ছা শক্তি ও স্বপ্নকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তাঁর ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হয়েছে । আসলে সাফল্য তখনই আসে যখন ইচ্ছাশক্তি ও অধ্যাবসায় এক সঙ্গে কাজ করে । সুভাষ পাটিল ১৬ বছর জেলে থাকার পরও একবারের জন্য হতাশ হননি । তিনি তাঁর লক্ষ্যে অবিচল ছিলেন বলেই আজ চিকিৎসক হিসাবে সমাজের কাছে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছেন । এখানেই সুভাষের অনন্যতা ।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment