আন্তর্জাতিক 

মোদীর হিন্দুত্ব ও বিভাজনের নীতি মুখ থুবড়ে পড়ল দিল্লিতে বলছে বিদেশী সংবাদ মাধ্যম

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : দিল্লির নির্বাচনে বিজেপির পরাজয়কে মোদীর ব্যক্তিগত পরাজয় বলে মনে করছে বিদেশী সংবাদ মাধ্যমগুলি । গতকাল দিল্লির নিবৃাচনের ফল প্রকাশ হওয়ার পর আজ বিদেশী সংবাদ মাধ্যমগুলি ফলাও করে সংবাদ প্রকাশ করেছে । এই সংবাদে যেমন অরবিন্দ কেজরিওয়ালের উন্নয়ন কর্মসূচিগুলি ঠাঁই পেয়েছে , একইভাবে মোদী তথা বিজেপির বিভাজন রাজনীতিও ঠাঁই পেয়েছে । বিদেশী সংবাদ মাধ্যমগুলি দাবি করেছে মোদীর দল সংশোধিত নাগরিকত্ব ও উগ্র হিন্দুত্বের প্রচার করেও মানুষের সমর্থন পায়নি ।

বুধবার বহুল প্রচারিত আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমেও অন্যতম চর্চার বিষয় দিল্লির বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল। নিউইয়র্ক টাইমসের শিরোনাম, ‘মোদীর দলের কাছে বড় ধাক্কা ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর দল নাগরিকত্ব উগ্র হিন্দুত্ববাদের ব্যাপক প্রচার চালিয়েছিল। ভোটপ্রচারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর প্রতিবাদীদের গুলি করে মারার কথা বলেছিলেন, সেই প্রসঙ্গের উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনে। পাশাপাশি কেজরীবাল যে অপেক্ষাকৃত নরম অবস্থানে থেকে শুধুই জনমুখী রাজনীতির উপর ভরসা রেখেছিলেন, তা বলা হয়েছে

মোদীর দলের আশ্চর্য পরাজয়শিরোনামে ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনে কেজরীবালের জনকল্যাণমুখী প্রকল্পগুলির উল্লেখ করা হয়েছে। সেগুলির মধ্যে রয়েছে স্কুল শিক্ষা, মহল্লা ক্লিনিক তথা বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরিষেবা, সস্তা বিনামূল্যে বিদ্যুৎ, মহিলাদের জন্য বিনা পয়সায় সরকারি বাসে সফরের মতো বিষয়।মোদীর উপর আঘাতবলেও মন্তব্য করা হয়েছে ওই প্রতিবেদনে

আট মাস আগেই লোকসভা নির্বাচনে ব্যাপক ভরাডুবি হয়েছিল আপের। দিল্লিতে একটি আসনও পায়নি কেজরীবালের দল। সাতটি আসনেই জিতেছিলেন বিজেপি প্রার্থীরা। সেই প্রসঙ্গ টেনে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের শাসক দলকে বড় ধাক্কা দিল আপ। অন্য দিকে আল জাজিরার প্রতিবেদনে মন্তব্য, মোদীর হিন্দুত্ব বিভাজনের নীতি মুখ থুবড়ে পড়ল দিল্লিতে

মেরুকরণের রাজনীতির সমালোচনা করে দ্য গার্ডিয়ানের মন্তব্য, ‘‘এই ফল বিজেপির চেয়েও বেশি হার মোদীর। সম্প্রতি একাধিক রাজ্যে বিজেপির হারের পর দিল্লিতেও হারকে মোদীর পরাজয় হিসেবেই দেখেছে দ্য গার্ডিয়ান। পাশাপাশি অন্যান্য সংবাদ মাধ্যমের মতোই কেজরীবালের জনমুখী নীতির প্রশংসা করেছে এই সংবাদপত্র

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment