দেশ 

আন্দোলনের চাপেই কী এনআরসি নিয়ে সুর নরম করল কেন্দ্র ? সিএএ প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলছে শাহিন বাগ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে এবং এনপিআর ও এনআরসি-র বিরুদ্ধে সমগ্র দেশজুড়ে জাতীয় পতাকা হাতে নিয়ে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে তাতে বেশ খানিকটা কোনঠাসা হয়ে পড়েছে কেন্দ্র সরকার । বিশেষ শাহিন বাগ আন্দোলনের মডেলকে সম্বল করে সমগ্র দেশজুড়ে যেভাবে হিন্দু-মুসলিম-শিখ –খিস্ট্রান রাস্তায় নেমে পড়েছে তাতে মোদী-অমিত শাহরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে । আর এই বিক্ষোভের চাপেই মোদী সরকার এনআরসি ইস্যুতে পিছু হঠার ইঙ্গিত দিল ।কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে সংসদে মঙ্গলবার একটি লিখিত বিবৃতিতে তেমনই ইঙ্গিত মিলল।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই এ দিন সংসদে লিখিত ভাবে জানালেন, সারা দেশে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) কার্যকরের কোনও সিদ্ধান্ত এখনও পর্যন্ত নেয়নি কেন্দ্রীয় সরকার। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে এ দিন এও জানানো হয়েছে, খসড়া আইন প্রকাশের পর সিএএ মেনে নাগরিকত্ব চাইলে যে কেউ আবেদন জানাতে পারেন।

সংসদে এ দিন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর লিখিত বিবৃতির পর সরকারের আশা, এই ব্যাখ্যার প্রেক্ষিতে এ বার সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) এবং এনআরসি-র বিরুদ্ধে দেশজোড়া বিক্ষোভ প্রশমিত হবে। দু’টি আইনের বিরুদ্ধে গত দু’মাস ধরে প্রতিবাদ, বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত।

সিএএ সেই আইন যেখানে ভারতে এই প্রথম ধর্মের ভিত্তিতে নাগরিকত্বকে মান্যতা দেওয়া হয়েছে। গত ডিসেম্বরে সংশ্লিষ্ট বিলটি পাশ হয়েছে সংসদের দুই কক্ষে। তার পর থেকেই বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে গোটা দেশ। যার জেরে কেন্দ্র এখনও পর্যন্ত আইনের খসড়া প্রকাশ করেনি।

যে অ-বিজেপি রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীরা ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন তাঁদের রাজ্যে ওই দু’টি আইন তাঁরা কার্যকর হতে দেবেন না, সরকারি সূত্রের খবর, তাঁদের বোঝাতে এখন ব্যস্ত হয়ে পড়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। আইনের খসড়া প্রকাশের আগে তাঁদের পাশে পাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তার ফলে, আইনের খসড়া প্রকাশে দেরি হচ্ছে।

সংসদে এ দিনের লিখিত বিবৃতিতে সে কথা কবুলও করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। নিত্যানন্দ বলেছেন, ‘‘সিএএ নিয়ে অনেক রাজ্যেরই উদ্বেগ রয়েছে। বিজেপি এবং অ-বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আমরা নিয়মিত যোগাযোগ রেখে চলেছি। তাঁদের আতঙ্ক যে অমূলক, সেটা বোঝানোর চেষ্টা করছি। সরকারের অবস্থানটাও তাঁদের বোঝানোর চেষ্টা করছে ।”

তবে শাহিন বাগের আন্দোলনকারীরা মনে করছে তাদের আন্দোলনের ফলেই সরকার পিছু হঠছে । কিন্ত সিএএ প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে আন্দোলনকারীরা ।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment