দেশ 

মুখ খুললেন বিমানের পাইলট অস্বস্তিতে কর্তৃপক্ষ ; ২৫ লক্ষ টাকার ক্ষতিপূরণ চেয়ে ইন্ডিগোকে আইনি নোটিশ কুণাল কামরার

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বেকায়দায় পড়ে গেলেন ইন্ডিগো বিমান সংস্থার কর্তৃপক্ষ । সাংবাদিক অর্নব গোস্বামীকে হেনস্থা করার অভিযোগে কৌতুক অভিনেতা কুণাল কামরাকে ৬ মাসের জন্য নিষিদ্ধ করে দেয় ইন্ডিগো বিমান সংস্থা । আর এই ঘটনা নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুলে কর্তৃপক্ষকে বিপাকে ফেললেন ওই বিমানের পাইলট। তিনি এক ইমেল বার্তায় লিখেছেন ,”আমার বিমান সংস্থা একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সম্পূর্ণ সোশাল মিডিয়া পোস্টের ওপর ভিত্তি করে। এটা দেখে আমি খুব মর্মাহত। সেক্ষেত্রে পাইলট-ইন-কমান্ড হিসেবে আমার সঙ্গে আলোচনা করা হয়নি। আমার ন’বছরের পেশায় এই ঘটনা অভাবনীয়।” এমনকি কুণাল কামরার বিরুদ্ধে নেওয়া সিদ্ধান্ত অসামরিক বিমান আইন মেনে হয়নি বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি। পাইলট বলেন, “ওই যাত্রীর অন বোর্ড আচরণ লেবেল ১ ধারাকে উল্লঙ্ঘন করেনি। তাই আমি  মনে করিনা এ বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করা যেতে পারে। অনবোর্ড কোনও যাত্রীর আচরণ অত্যন্ত অসহনশীল হলেই পাইলট সেই ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করেন। কিন্তু এক্ষেত্রে সেই ঘটনা ঘটেনি।” ইন্ডিগোর থেকে রীতিমতো কৈফিয়ত চেয়ে ওই ক্যাপ্টেনের প্রশ্ন, “হাই প্রোফাইল কেস বলেই কী বিশেষ সেই যাত্রীর ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপানোর ধারা অন্যরকম? এটা কি অনিশ্চয়তার পরিবেশ তৈরি করবে না?” যদিও পিটিআই ইন্ডিগোর বিবৃতি উদ্ধৃত করে বলেছে, “যুক্তিপূর্ণ অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা ওই পদক্ষেপ নিয়েছি। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে অভ্যন্তরীণ কমিটি তদন্ত করছে।”

এদিকে পাইলটের বক্তব্য প্রকাশ্যে আসার পরেই কুণাল কামরা আইনি নোটিশ পাঠালেন ইন্ডিগোকে । ইন্ডিগো বিমান সংস্থাকে আইনি নোটিশ পাঠিয়ে কুণালের আইনজীবী বলেছেন, “আমার মক্কেলকে মানসিক বেদনা ও অস্থিরতা দেওয়ার জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে ইন্ডিগোকে। পাশাপাশি এই সিদ্ধান্তের জেরে আমার মক্কেলের পূর্ব নির্ধারিত অনুষ্ঠান বাতিল হয়েছে। ফলে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন তিনি। তাই ক্ষতিপূরণ স্বরূপ আপনাদের ২৫ লক্ষ টাকা দিতে হবে।” বুধবার ইন্ডিগোর বিমানে অনবোর্ড অবস্থায় সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীকে হেনস্থা করার অভিযোগ উঠেছে ওই কৌতুক অভিনেতার বিরুদ্ধে। অভিযোগ, অন বোর্ড অভব্য আচরণ করে বিমান যাত্রা আইনের ধারা লঙ্ঘন করেছিলেন তিনি। এমন অভিযোগ তুলে ছ’ মাসের জন্য কুণাল কামরার ইন্ডিগো বিমানে যাতায়াতের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে ওই বিমান সংস্থা। সেই পথে হেঁটেছে এয়ার ইন্ডিয়া, গো এয়ার এবং স্পাইস জেটও। ওই চারটি বিমান সংস্থার সিদ্ধান্ত টুইট করে প্রকাশ করেছেন অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী হরদীপ পুরি। সেই সিদ্ধান্তেরর বিরোধিতা করে নিজের বিমান সংস্থাকে মেল পাঠান ইন্ডিগো পাইলট রোহিত মাতেতি। ঘটনার দিন ওই বিমানেই অন ককপিট ছিলেন সেই পাইলট। সৌজন্যে : এনডিটিভি।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment