দেশ 

জামিয়ার পর শাহিন বাগেও শনিবার বিকেলে চলল গুলি, চাঞ্চল্য দেশজুড়ে

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : মহাত্মা গান্ধীর শহিদ দিবসে রামভক্ত গোপাল জামিয়ার পড়ুয়াদের লক্ষ্য পুলিশের সামনেই গুলি চালিয়েছিল । পরে জানা যায় সে একজন নাবালক । তবে নাবালক হলে ইয়ো লো আজাদীর মত স্লোগান গোপাল দিয়েছিল । এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আজ শনিবার বিকেলে দিল্লির শাহিন বাগে এক অপরিচিত ব্যক্তি গুলি চালায় । তিনি অবশ্য শূণ্যে গুলি চালিয়েছেন । তাই কেউ হতাহত হয়নি । রামভক্ত গোপালের মিছিল লক্ষ্য করে গুলি চালালে হয়তো দিল্লির শাহিন বাগে অঘটনও ঘটতে পারত । তা হয়নি ।এ ঘটনায় স্বাভাবিক ভাবেই তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। তাকে দিল্লি পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জেরা করছে। কয়েকটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, ধরা পড়ার সময় সে জয় শ্রীরাম স্লোগান দিচ্ছে।
সিএএ বিরোধী শাহিনবাগের প্রতিবাদ অবস্থান নিয়ে  বিজেপির প্রথম সরির নেতারা নানাভাবে কটাক্ষ করছিলেন । অমিত শাহ দিল্লিবাসীকে আহ্বান জানিয়েছিলেন এমনভাবে ইভিএমের বোতাম টিপুন যাতে শাহিনবাগে কারেন্ট লাগে ।  দেশ কা গাদ্দারো কো ? বলে অর্থ প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর মন্তব্য করার পর দর্শক বলে ওঠে গুলি মারো শালোকে ! আবার দিল্লির সাংসদও শাহিনবাগ নিয়ে কুমন্তব্য করেছিলেন ।

গত সোমবার কেন্দ্রীয় অর্থ প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর দিল্লি বিধানসভা ভোটের প্রচারে বারবার দেশ কে গদ্দারো কো বলে ধুয়ো তোলেন, উপস্থিত জনতা বলে ওঠে গোলি মারো শালো কো! পরদিন বিজেপি বিধায়ক পরবেশ সাহিব সিংহ ভার্মা হুঁশিয়ারি দেন, শাহিনবাগের বিক্ষোভকারীরা আপনাদের ঘরে ঢুকে পড়ে মা-বোনদের ধর্ষণ করতে পারে। এজন্য অনুরাগ, পরবেশের ওপর যথাক্রমে ৭২ ঘন্টাও ৯৬ ঘন্টা ভোটপ্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে নির্বাচন কমিশন। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশের রাজনীতি আবার নতুন করে দানা বাধল বলে মনে করা হচ্ছে ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment