কলকাতা 

কেরল-পঞ্জাব-রাজস্থানের পর পশ্চিমবাংলা বিধানসভাতেও পাশ সিএএ বিরোধী প্রস্তাব , আমাদের রাজ্যে সিএএ, এনআরসি আর এনপিআর করার অনুমতি দেবো না : মমতা

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : কেরল , পঞ্জাব , রাজস্থানের এবার পশ্চিমবাংলা বিধানসভাতেও সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পাশ হয়ে গেল । মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিজেপি এ বিষয়ে কড়া আক্রমণ করেছে । সোমবার বিজেপি বলেছে , মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় “পাকিস্তানের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর” । রাজ্য বিধানসভায় এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, আমাদের রাজ্যে সিএএ, এনআরসি আর এনপিআর করার অনুমতি দেবো না। মানুষ আতঙ্কে আছেন। সব ধরণের নথির জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে হয়রান হচ্ছেন।

রাজ্যের পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় আজ দুপুর দুটো নাগাদ সিএএ-বিরোধী প্রস্তাব বিধানসভায় পেশ করেন। সর্বসম্মতভাবে প্রস্তাব পাসের জন্য বিরোধীদের কাছে আর্জি জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও পার্থ চট্টোপাধ্যায়। প্রস্তাবে কিছু সংশোধনী আনতে চান কংগ্রেস ও বাম বিধায়করা। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে কোনও সংশোধনী না আনার আর্জি জানানো হয়।শেষ পর্যন্ত ভোটাভুটিতে গেল না কংগ্রেস-বাম। বিরোধিতা করে বিজেপি। প্রস্তাব বিধানসভায় গৃহীত হয়।


বিরোধীরা বাম-কংগ্রেস এ ব্যাপারে এর আগে তাদের আনা প্রস্তাবে কেন সায় দেওয়া হল না, মুখ্যমন্ত্রী কেন রাজভবনে গেলেন, সেই সব প্রশ্ন তোলেন।
প্রস্তাবে সিএএ বাতিল, জাতীয় নাগরিকপঞ্জী (এনআরসি) ও জাতীয় জনসংখ্যাপঞ্জী (এনপিআর) প্রকল্পের কাজ শুরু না করার আর্জি জানানো হয়েছে কেন্দ্র সরকারকে। কয়েকদিন আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছিলেন যে, কেন্দ্র শুধুমাত্র অ-বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে সিএএ চালু করার চেষ্টা করছে। মমতা আরও বলেছিলেন, আমরা তিনমাস আগে এনআরসি-র বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাস করেছি। এবার সিএএ-র বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাস করব।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment