জেলা 

অমিতের চ্যালেঞ্জের পাল্টা জবাব মমতার ‘‘আমরা যদি মিথ্যে বলি, তা হলে সত্যিটা কী আপনি বলুন?’’

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : গতকাল নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের পক্ষে সওয়াল করতে গিয়ে অমিত শাহ চ্যলেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিলেন মমতা-রাহুল-অখিলেশ ও মায়াবতীর দিকে । আজ বুধবার দার্জিলিং থেকে পাল্টা প্রত্যাঘাত করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

বুধবার দার্জিলিঙে পদযাত্রা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার পর যোগ দেন জনসভায়। সেখানে নরেন্দ্র মোদীকে নিশানা করে তিনি বলেন, ‘‘আমাদের ভোট নিয়ে এখন প্রধানমন্ত্রী আমাদেরই তাড়াতে চাইছেন। আজ আমাদের কি আবার স্বাধীনতার কথা বলতে হবে? এখন বিজেপির মনে হল, নাগরিকত্ব আইন চালু করতে হবে?’’ পাহাড়বাসীকে আশ্বাস দেওয়ার সুরে তিনি বলেন, ‘‘সবাইকে বলছি, ভয় পাবেন না। আমরা পাশে আছি। সিএএ বাতিল না হওয়া পর্যন্ত এই আন্দোলন চলবে। এক জন গোর্খাকেও আমরা তাড়াতে দেব না।’’  এর পরই অমিত শাহের উদ্দেশে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে মমতা বলেন, ‘‘কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বড় বড় কথা বলছেন। আমাদের পাকিস্তানি বলে দাগিয়ে দিচ্ছেন। অথচ, সকালে এক কথা বলছেন, আর বিকেলে আর এক। আমাদের গালাগালি দিলে হবে না। আমরা যদি মিথ্যে বলি, তা হলে সত্যিটা কী আপনি বলুন?’’ এ দিন সিএএ-এর সূত্র ধরেই এ দিন পাহাড় থেকে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) ও জাতীয় জনসংখ্যা রেজিস্টার (এনপিআর) প্রত্যাহারের দাবিও তুলেছেন তিনি।

সিএএ-কে বিভাজনমূলক আইন বলে ব্যাখ্যা করে মমতার বক্তব্য, ‘‘এর জন্য ফের লড়তে হলে লড়ব। কিন্তু, দেশ ভাগ হতে দেব না। এক জন গোর্খাকেও আমরা এখান থেকে তাড়াতে দেব না।’’ তাঁর যুক্তি, ‘‘দেশের অর্থনীতি বেহাল। দেশে কর্মসংস্থানও হচ্ছে না। আর এ সব ব্যর্থতা ধামাচাপা দিতেই বিজেপি এ সব করছে।’’ বিজেপি দেশ জুড়ে ঘৃণার রাজনীতি চালাচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন মমতা। বলেন, ‘‘বিজেপির কাজ গুলি করা, মানুষ মারা ও আগুন জ্বালানো।’’ দেশ ভাগ করতে বিজেপি ষড়যন্ত্র করছে বলেও তাঁর অভিযোগ। এর পরই পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে তিনি বলেন, ‘‘বাংলায় আমরা একটাও ডিটেনশন ক্যাম্প হতে দেব না। প্রথমে আমাকে তাড়ান, তার পরে রাজ্যবাসীকে তাড়াবেন।’’

দার্জিলিঙে সিএএ বিরোধী প্রতিবাদের স্বর আরও জোরালো করতে পাহাড়বাসীকে আহ্বান জানিয়েছেন মমতা। তিনি বলেন, ‘‘বিজেপি কর্মীরা ঘরে ঘরে গিয়ে কিছু বললে বা নথি চাইলে দেবেন না। সমস্ত উত্তর পূর্বাঞ্চলের মানুষকে বলছি, আপনারা প্রতিবাদের রাস্তায় নামুন।’’ মমতার বক্তব্যে এ দিন উঠে এসেছে লখনউয়ে সিএএ বিরোধী আন্দোলনের কথাও। উত্তরপ্রদেশের পুলিশ আন্দোলনকারীদের কম্বল ও খাবার ছিনিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment