বিনোদন, সংস্কৃতি ও সাহিত্য 

জীবনানন্দ সভাঘরে ‘গল্পকথার বৈঠক’এর উদ্বোধন ও প্রথম গল্পানুষ্ঠান

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

প্রতিবেদক, বাংলার জনরব : গল্প লেখক আর পাঠকের এক ঐতিহাসিক দিন ২১ জানুয়ারি ২০২০ । কারণ এই দিনেই রবীন্দ্র সদন জীবনানন্দ সভা ঘরে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে আনুষ্ঠানিক জন্ম হলো গল্পলেখা ও আলোচনার নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান “গল্প
কথার বৈঠক” এর। প্রকাশিত হলো তার প্রথম বর্ষ প্রথম মুখপত্র গল্প সঙ্কলন ‘সিরজা’। সম্পাদনায় উপেক্ষিৎ শর্মা। যার যোগ্য সম্পাদনায় কলকাতা মহানগরীর গল্প রসিক ও গল্পবোদ্ধাদের আরেকটি ব্যতিক্রমী বৈঠকের দীর্ঘ প্রতিক্ষার অবসান হলো বলে সহমত পোষণ করেন এদিনের আলোচনা সভার আলোচকরা।
উদ্যোক্তাদের আয়োজিত এদিনের গল্প বিষয়ক আলোচনা সভায় প্রাবন্ধিক অভিযান বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভাপতিত্বে আলোচনায় গল্পের বিভিন্ন দিক নিয়ে প্রাঞ্জল আলোকপাত করেন সাহিত্যিক অসিতকৃষ্ণ দে, বীরেন চট্টোপাধ্যায়, অধ্যাপিকা ড. বিনতা রায়চৌধুরী, হরিসাধন চন্দ ও সুকুমার রুজ। এর আগে বৈঠকের পরিকল্পনা বিষয়ে উপস্থিত দর্শক শ্রোতাদের অবগত করান কর্মাধ্যক্ষ তথা অনুষ্ঠান সঞ্চালক সঞ্জিৎ কুমার দুবে এবং অনুষ্ঠানের তাৎপর্য ব্যাখ্যা করেন পত্রিকা সম্পাদক উপেক্ষিৎ শর্মা।
আজকাল আনুষ্ঠানিক সাহিত্য বাসরে সাধারণত আলোচনার পাশাপাশি কবিতা পাঠের ব্যাপারটাকেই প্রাধান্য দেওয়া হয়। যাতে কম সময়ে অনেককে সুযোগ দেওয়া যায়। কিন্তু সদ্যজাত গল্পকথার বৈঠকে উপস্থিত গল্পকারদের নিয়ে এক মনোজ্ঞ গল্প পাঠেরও আয়োজন করা হয়।
গল্পপাঠের আসরে স্বরচিত গল্পপাঠ করে উপস্থিত গল্প রসিকদের ঋদ্ধ করেন গল্পকার রমেশ পুরকায়স্হ, অসিতকৃষ্ণ দে, প্রতিমা ঘোষ, চন্দ্রা বিশ্বাস, জয়ন্ত মুখোপাধ্যায়, সবিতা বেগম, শেখ আব্দুল মান্নান, শিখা দাস, অসীম চৌধুরী, জ্যোতির্ময় চক্রবর্তী, সুকুমার রুজ, চন্দন বিশ্বাস, পুজা তালুকদার, শুভেন্দু পালিত, সোমা মুখোপাধ্যায়, দীপেন ভাদুড়ী ও সমর শঙ্কর চট্টোপাধ্যায়। উল্লেখ্য এদিন বৈঠকের তরফে আমন্ত্রিত অতিথি, আলোচক ও প্রত্যেক গল্পকারকে পুষ্প ও স্মারকে সম্মানিত করা হয়।
এদিনের অনুষ্ঠানে কবি চন্দ্রা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্বোধনী সঙ্গীত, প্রশান্ত দাসের স্বরচিত সিরজা-সঙ্গীত এবং ভারতী চ্যাটার্জীর উদাত্ত কন্ঠে পরিবেশিত অমিতাভ দাশগুপ্তর ‘আমার নাম ভারতবর্ষ’ কবিতা আবৃত্তি অনুষ্ঠানের সৌষ্ঠব বৃদ্ধি করে।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment