দেশ 

জেএনইউ-র সার্ভার রুমে কোনো ভাঙচুর হয়নি তথ্য জানার অধিকার আইনে জানাল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বহু চর্চিত ও বিতর্কিত বিষয় জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্ভার রুমে নাকি বামপন্থী ছাত্র-ছাত্রীরা হামলা করেছিল বলে অভিযোগ । এমনকি পুলিশের পক্ষ থেকে সম্প্রতি যে সাংবাদিক সম্মেলন করা হয়েছিল সেখানেও বলা হয় , যে ঐশী ঘোষের নেতৃত্বে সার্ভার রুম ভাঙচুর করা হয়েছে । তবে তথ্য জানার অধিকার আইনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল সত্যিই ৩ জানুয়ারি সার্ভার রুম কেউ ভাঙচুর করেছিল কিনা ?

আরটিআইয়ের উত্তরে বিশ্ববিদ্যালয় জানিয়েছে, “জেএনইউয়ের মেন সার্ভার জানুয়ারি বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং পরদিন তা কাজ করেনি বিদ্যুৎ সরবরাহ বিচ্ছিন্ন থাকার জন্য।

আরটিআইয়ের উত্তরে জানানো হয়েছে মোট ১৭টি ফাইবার অপটিক্যাল কেবল জানুয়ারি দুপুর ১টায় নষ্ট করা হয়। বলা হয়েছে, “কোনও বায়োমেট্রিক ব্যবস্থা ৩০ ডিসেম্বর ২০১৯ থেকে ২০২০ জানুয়ারির মধ্যে ভাঙা বা ধ্বংস করা হয়নি।

আরটিআই করে এও জানতে চাওয়া হয়েছিল যে সিআইএস দফতরে যে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় লাগানো সিসিটিভি তার সার্ভার রয়েছে কিনা এর উত্তরে বিশ্ববিদ্যালয় জানিয়েছে, সিসিটিভি ক্যামেরার সার্ভার ডেটা সেন্টারে রয়েছে, সিআইএস অফিসে নয়

একটি এফআইআরে জেএনইউ কর্তৃপক্ষ অভিযোগ করেছিল, জানুয়ারি একদল ছাত্র মুখোশ পরে জোর করে সিআইএস ঢুকে পড়ে এবং বিদ্যুতের সুইচ বন্ধ করে সার্ভার অকেজো করে দেয়, যার ফলে সিসিটিভি নজরদারি, বায়োমেট্রিক হাজিরা ইন্টারনেট পরিষেবার মতন কাজ ক্ষতিগ্রস্ত হয়

একটি জাতীয় সংবাদ মাধ্যমে এই খবর প্রকাশিত হয়েছে । জেএনইউ কর্তৃপক্ষ একথা স্বীকার করে নেওয়ার পর প্রশ্ন উঠেছে তাহলে কেন ৩ ও ৪ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্ভার রুমে হামলা হয়েছে বলে পুলিশের কাছে এফআইআর দায়ের করা হয় ?

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment