দেশ 

প্রতিবাদ করা নাগরিকের অধিকার এই যুক্তিতেই জামিন পেলেন ভীম আর্মির প্রধান চন্দ্রশেখর আজাদ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : প্রতিবাদ করা সাংবিধানিক অধিকার , প্রতিবাদ করা নাগরিকের মৌলিক অধিকার । এই যুক্তিতে ভীম আর্মির প্রধান চন্দ্রশেখর আজাদকে জামিন দিল দিল্লির তিস হাজারি আদালত । তবে জামিনের শর্তে আদালত বলেছে আগামী চার সপ্তাহ আজাদ কোনো বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নিতে পারবেন না ।বিধানসভা ভোটেপর্বে দিল্লিতে থাকতে পারবেন না ভীম আর্মি প্রধান।  যাওয়া চলবে না শাহিনবাগ চত্বরে। তবে উত্তরপ্রদেশে রওনা হওয়ার আগে তিনি জামা মসজিদ চত্বরে যেতে পারবেন।

মঙ্গলবারই তাঁর জামিনের শুনানি শুরু হয় আদালতে । সেই সময় দিল্লি পুলিশকে ভর্ৎসনা করে তিস হাজারি আদালতের বিচারক। আদালত জানিয়ে দেয়, বিক্ষোক্ষ প্রদর্শন করা নাগরিকের অধিকার। সেই অধিকার কেড়ে নিতে পারে না দিল্লি পুলিশ। কাজ হয়নি তাঁর বিরুদ্ধে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগ এনেও। বিচারক কামিনী লাউ সরকারি আইনজীবীকে ভর্ৎসনা করে বলেন, ‘‘কোথায় হিংসা, চন্দ্রশেখরের সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টে কোথায় ভুল? কেন প্রতিবাদ করা যাবে না? সংবিধানটা আদৌ পড়ে দেখেছেন?’’

গত ২১ ডিসেম্বর চন্দ্রশেখরকে গ্রেফতার করে দিল্লি পুলিশ। জামা মসজিদ চত্বর থেকে আটক করা হয় হয় তাকে। প্রায় এক মাস জেলে থাকার পর ভীম আর্মির প্রধান চন্দ্রশেখর আজাদ আজ জামিন পেলেন । আজাদ জেলে যাওয়ার আগে সাংবাদিকদের বলেছিলেন তাকে কেউ জেলে আটক করে রাখতে পারবে না । তিনি জেলে যাওয়ার বরং দেশে আন্দোলন আরও তীব্র আকার নিয়েছে ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment