কলকাতা 

মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের রায় পুনর্বিচনার জন্য আবেদন গ্রহণ করল সুপ্রিম কোর্ট , আগামী সপ্তাহে শুনানী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : গত ৬ জানুয়ারি দীর্ঘদিন ধরে চলা সাংবিধানিক প্রশ্নে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের অস্তিত্ব থাকবে কিনা তা নিয়ে রায় চূড়ান্ত দেন সুপ্রিম কোর্টের দুই বিচারপতি বেঞ্চ। এই বেঞ্চ জানিয়ে দেয় , রাজ্যের সরকার অনুমোদিত ৬১৪টি মাদ্রাসায় সংখ্যালঘু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান । এর যাবতীয় পরিচালন ক্ষমতা সংখ্যালঘুদের উপরেই থাকবে । তবে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ করবে । মাদ্রাসাগুলি যেহেতু সংখ্যালঘু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সেহেতু সংবিধানের ৩০ নং ধারা অনুসারে সরকার কিংবা সরকার পরিচালিত কোনো প্রতিষ্ঠান তার উপর খবরদারি করতে পারে না । এটাকে হাতিয়ার করেই কাঁথি রহমানিয়া হাইমাদ্রাসা কলকাতা হাইকোর্টে সংবিধানে বর্ণিত সংখ্যালঘুদের মৌলিক অধিকারে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন হস্তক্ষেপ করছে বলে দাবি করে কমিশনের বাতিলের জন্য আবেদন করে । তারই পরিপ্রেক্ষিতে কলকাতা হাইকোর্টে সিঙ্গেল ও ডিভিশন বেঞ্চ মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনকে অসাংবিধানিক বলে রায় দেয় ।

পরে এই মামলা সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত গড়ায় , সেখানে গত ৬ জানুয়ারি বিচারপতিরা রায়ে বলেন , মাদ্রাসাগুলি সংখ্যালঘু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তবে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন সংবিধানের ৩০ নং অনুচ্ছেদকে কোনো ভাবেই অমান্য করছে না । সুতরাং মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন বহাল থাকবেই । সেদিনই কাঁথি রহমানিয়া মাদ্রাসার পক্ষে আইনজীবী আবু সোহেল জানিয়ে ছিলেন আমরা এই রায়ের বিরুদ্ধে প্রধান বিচারপতির দ্বারস্থ হব । আজ বুধবার কাঁথি রহমানিয়ার আইনজীবী সলমন খুরশিদ প্রধান বিচারপতির এজলাসে , মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের পক্ষে রায় সংবিধানের ৩০ নং অনুচ্ছেদ অনুসারে যথাযথ হয়নি বলে আবেদন করেন । সেই সঙ্গে তিনি বিষয়টি বৃহত্তর সাংবিধানিক বেঞ্চে পাঠানোর আবেদন করেন ।

প্রখ্যাত আইনজীবী সলমন খুরশিদের বক্তব্য শোনার পর আবেদনটি প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদে গ্রহণ করেছেন এবং আগামী সপ্তাহে এর শুনানী হবে বলে জানিয়েছেন ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment