দেশ 

নারীর নৃশংস ধর্ষণের বিরুদ্ধে সোস্যাল মিডিয়ায় অভিনব প্রতিবাদ বাঙালি অভিনেত্রীর , কী পোস্ট করলেন ওই অভিনেত্রী?জানতে হলে ক্লিক করুন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : একুশ শতকের প্রথম দশকে বিজ্ঞান-প্রযুক্তির অভাবনীয় উন্নতি করলেও কিন্ত আমরা সেই অর্থে সভ্য হতে পারিনি । বিগত দশকে নারীর উপর অত্যাচার বেড়েছে প্রবলভাবে । নারী ধর্ষণ এখন আর ধর্ষণে সীমাবদ্ধ নয় , তা নৃশংসতায় পৌছে গেছে । প্রতিবাদ-প্রতিরোধ হচ্ছে , কিন্ত কোনো পরিবর্তন নেই । খোদ দেশের রাজনীতিবিদ বা জনপ্রতিনিধি ধর্ষণের জড়িয়ে যাচ্ছে । ফলে বিচারের বাণী নিরবে কাঁদছে । বরং ধর্ষিতার চরিত্র নিয়ে প্রশ্ন ওঠে ।

আর নতুন দশকের শুরুতেই এ নিয়ে প্রশ্ন তুললেন বলিউডের বাঙালি অভিনেত্রী বিদিতা বাগ ।বিদিতার সাম্প্রতিক ইনস্টাগ্রাম পোস্ট অত্যন্ত সাড়া ফেলেছে নেটিজেনদের মধ্যে। বিশেষ ফোটোশুটে এক ধর্ষিত নারীর মেকআপে দেখা গিয়েছে তাঁকে। বিদিতা তাঁর এই প্রতিবাদী পোস্টটিতে মনে করিয়ে দিয়েছেন যে একজন মহিলার অনুমতিই শেষ কথা!

বিদিতা তাঁর প্রতিবাদী পোস্টের মাধ্যমে এই বার্তাই দিতে চেয়েছেন যে একটি মেয়ের শরীর স্পর্শ করা বা যৌন সঙ্গমের ক্ষেত্রে তার অনুমতিই শেষ কথা। অনুমতি ছাড়া একটি মেয়ের শরীর দখল করার যে প্রবণতা বেড়ে চলেছে ভারতীয় সমাজে, সেই প্রবণতা ও মানসিকতার পরিবর্তন চান বিদিতা। নতুন বছরে এটাই তাঁর বার্তা।

এই প্রসঙ্গে তিনি উদ্ধৃত করেছেন একটি বিতর্কিত প্রবাদবাক্য যা বহু বার ব্যবহৃত হয়েছে আন্তর্জাতিক স্তরে বিশেষ করে রাজনৈতিক বিভিন্ন ইস্যুতে– ”যখন ধর্ষণ অবশ্যম্ভাবী, তখন চুপ করে তা উপভোগ করাই শ্রেয়”। এই প্রবাদটি যে আক্ষরিক অর্থে শুধুই নারীর ধর্ষণ বোঝায় তা নয়, সামগ্রিকভাবে যে কোনও হিংস্র এবং ধ্বংসাত্মক পরিস্থিতির ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। এই প্রবাদ বাক্যের ব্যবহারের প্রতিবাদ করেছেন বিদিতা । একই সঙ্গে বলেছেন নারীর শরীরে তার অনুমতি ছাড়া দখল করার প্রবণতা ভারতীয়দের ত্যাগ করার সময় এসেছে ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment