দেশ 

‘‘হিন্দু ধর্মের প্রতীক গেরুয়া। তাতে প্রতিশোধ, হিংসা এবং শত্রুতার কোনও জায়গা নেই। তাই শুধুমাত্র গেরুয়া পরলেই হয় না। আগে ধর্ম পালন শিখতে হয়।’’ যোগীকে তোপ প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক :  ‘‘হিন্দু ধর্মের প্রতীক গেরুয়া। তাতে প্রতিশোধ, হিংসা এবং শত্রুতার কোনও জায়গা নেই। তাই শুধুমাত্র গেরুয়া পরলেই হয় না। আগে ধর্ম পালন শিখতে হয়।’’সোমবার লখনউয়ে সাংবাদিক বৈঠকে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যানাথকে এই ভাবেই ধর্মের শবক শেখালেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী । তিনি বলেন, ‘‘আমার মনে হয়, এই প্রথম কোনও মুখ্যমন্ত্রী নাগরিকদের উপর বদলা নেওয়ার কথা বললেন। আর ওঁর অভিপ্রায় সুনিশ্চিত করার ব্যবস্থা করছে রাজ্যের পুলিশ।’’

প্রিয়াঙ্কা আরও বলেন, ‘‘ভারত ভগবান শ্রীকৃষ্ণ এবং রামের দেশ। কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধের সময়ও একবারের জন্যও অর্জুনকে বদলা নেওয়ার কথা বলেননি কৃষ্ণ। হিন্দু ধর্মে বদলার কোনও জায়গা নেই। এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী গেরুয়া বস্ত্র পরেন। কিন্তু এই গেরুয়া আপনার নয়। এর সঙ্গে দেশবাসীর ধর্মীয় আস্থা জড়িয়ে। তাতে বদলা, হিংসা এবং শত্রুতার কোনও জায়গা নেই। তাই শুরু গেরুয়া পরলেই হয় না, সেই ধর্ম কী করে পালন করতে হয়, তা-ও শিখতে হয়।’’

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) এবং জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) নিয়ে উত্তরপ্রদেশে বিক্ষোভ চরম আকার ধারণ করলে সরকারি সম্পত্তির ক্ষয়ক্ষতি হয়। তা নিয়ে বিক্ষোভকারীদের কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারি দেন রাজ্যের মু্খ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তিনি বলেন, ‘‘সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করায় যাঁরা জড়িত, তাঁদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে নিলামে চড়িয়ে ক্ষতিপূরণ করা হবে। আমাদের কাছে সব ঘটনার ভিডিয়ো এবং সিসিটিভি ফুটেজ রয়েছে। আমরা বদলা নেব‌।’’ এই মন্তব্যকে হাতিয়ার করেই তাঁর বিরুদ্ধে আক্রমণে শান দিলেন প্রিয়াঙ্কা।

প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকেও গতকাল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ হেনস্তা করেছে বলে অভিযোগ ওঠে। যোগীর পুলিশ মুসলমানদের পাকিস্থানে পাঠিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে । এই অবস্থায় কংগ্রেসের সাধারন সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর আজকের সাংবাদিক সম্মেলন বিশেষ তাৎপর্য বহন করছে।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment