কলকাতা 

বঙ্গ বিজেপির রাশ কী এবার মুকুল রায়ের হাতে?

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মুকুল রায় বাংলার রাজনীতিতে সবচেয়ে আলোচিত রাজনীতিবিদ। তৃণমূল কংগ্রেসে থাকাকালিন সময়েও মুকুল রায়ের জনসংযোগ ছিল চোখে পড়ার মত। পরিশ্রমী রাজনীতিবিদ। তৃণমূলের এই সেকেন্ড ইন কমান্ড-র হঠাৎ বিজেপি যাত্রায় সাধাররণ মানুষের মনে ধন্ধ সৃষ্টি হয়েছিল। আর সেই ধন্ধ যে বিজেপিতে ছিল না তা কিন্ত নয়। তাদের মনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছিল মুকুল কেন বিজেপিতে? সেই কারণেই হয়তো বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর প্রায় ৯ মাস কেটে গেলেও ওই দলে তাঁর কোন পদ ছিল না। তাঁকে বিজেপি নেতৃত্ব নানভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছিল,এমনকি সবচেয়ে বড় পরীক্ষাটি ছিল পঞ্চায়েত নির্বাচন। মোটামুটি সেই পরীক্ষায় তিনি পাশ করে গেছেন। জানা গেছে সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনে গ্রাম পঞ্চায়েতে যে ৫৭৪০টি আসন বিজেপি জিতেছে এতেই নাকি অমিত শাহ মুকুলের প্রতি সন্তুষ্ট। আর অমিত শাহর এছাড়া কোনও উপায় নেই। কারণ দিলীপ ঘোষরা ২৯৪টি বিধানসভা আসনের বিস্তারক ঠিক করতে পারেননি অথচ মুকুল রায় মাত্র কয়েক মাসের পরিশ্রমে ৫৭৪০টি পঞ্চায়েত সদস্য দলকে উপহার দিয়েছে।

স্বাভাবিকভাবেই মুকুলের পদোন্নতি শুধু সময়ের আপেক্ষা মাত্র। দিল্লির বিজেপি নেতৃত্ব সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও মুকুলের কাজে খুশি। তিনি সম্ভবত দলের কেন্দ্রীয় সম্পাদক হতে চলেছেন। সবচেয়ে বড় খবর এই যে,দিলীপ ঘোষের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তাকে আর রাজ্য সভাপতির পদে রাখা হবে না। শোনা যাচ্ছে এ বিষয়ে নাকি আরএসএসের সমর্থন পাওয়া গেছে। বিশেষ করে পুরুলিয়ায় দুই কর্মীর মৃত্যুর পর রাজ্য বিজেপি জোরদার আন্দোলন না করার জন্য আরএসএস ক্ষুদ্ধ।

জানা গেছে,দিলীপ ঘোষের পর বিজেপির পরবর্তী রাজ্য সভাপতি কে হবেন তা ঠিক করবে আরএসএস। সেক্ষেত্রে রাজ্য বিজেপিতে কিংবা আরএসএসে মুকুল ঘনিষ্ট কোন ব্যক্তিকে রাজ্য সভাপতি পদে দেখা যেতে পারে। সূত্রে পাওয়া এই খবরটি যদি সঠিক হয় তাহলে বঙ্গ রাজনীতিতে তৃণমূলের পর আবার বিজেপিতেও মুকুল রাজ শুরু হবে।


শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment