দেশ 

পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয়েছে আইএএস পরীক্ষার্থী সুলেমানের দাবি করে ৬ জন পুলিশ কর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের পরিবারের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখাতে গিয়ে উত্তরপ্রদেশের বিজনৌরে গুলিতে মৃত্যু হয়েছিল দু’জনের। কিন্তু পুলিশ দাবি করেছিল, তাদের গুলিতে এক জনের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশের সেই দাবি উড়িয়ে এ বার পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করল গুলিতে নিহত দ্বিতীয় যুবকের পরিবার। মোট ছ’জন পুলিশ কর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। নিহত সুলেমানের পরিবারের অভিযোগ, স্থানীয় বাসিন্দাদের অনেকের সামনে গুলি করলেও পুলিশের ভয়ে এখন কেউ মুখ খুলতে চাইছেন না।

নয়া নাগরিকত্ব আইন পাশ হওয়ার পর প্রতিবাদ-বিক্ষোভে সবচেয়ে বেশি উত্তাল হয়েছিল উত্তরপ্রদেশ। টানা তিন-চার দিন ধরে অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতির জেরে উত্তরপ্রদেশে ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। তার মধ্যে ২০ ডিসেম্বর উত্তাল হয়ে উঠেছিল বিজনৌর। ওই দিন নাহতৌর গ্রামে বিক্ষোভে পুলিশ গুলি চালায় বলে অভিযোগ ওঠে। গুলিতে মৃত্যু হয়েছিল আনাস এবং সুলেমান নামে দুই যুবকের। আনাসের মৃত্যু হয় ঘটনাস্থলেই। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সুলেমান।

পুলিশের গুলিতেই দু’জনের মৃত্যু হয়েছে বলে স্থানীয়রা দাবি করলেও পুলিশ তা মানতে চায়নি। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ডিজি ওমপ্রকাশ সিংহ বলেন, গোটা রাজ্যে শুধুমাত্র বিজনৌরে আনাস নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে পুলিশের গুলিতে। সে ক্ষেত্রেও আত্মরক্ষায় গুলি চালিয়েছিল  পুলিশ। এক কনস্টেবলের পেটে গুলি লাগার পর তিনি বাধ্য হয়ে গুলি চালিয়েছিলেন। রাজ্যের কোথাও উপর মহল থেকে গুলি করার নির্দেশ দেওয়া হয়নি।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment