কলকাতা 

তাপমাত্রা বাড়বে, পূর্বাভাস হাওয়া অফিসের তবে কয়েক দিনের মধ্যে জাঁকিয়ে পড়বে শীত

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্মৃতি সামন্ত : কয়েকদিন কনকনে ঠান্ডায় কাবু হয়েছে বাঙালি। এই মরসুমে ঠান্ডা পড়ছিল না বলে হা-হুতাশ করছিলেন মানুষ।
কয়েকদিনের ঠান্ডায় সেই শীতকে খুঁজে পেয়েছেন আম-বাঙালি। তবে তা খুব বেশি স্থায়ী হচ্ছে না। বৃহস্পতিবার রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ছিল ছিঁটে ফোঁটা বৃষ্টি সঙ্গে মেঘলা আকাশ।
বছরের শেষের দিকে তাপমাত্রা কিছুটা বাড়ার পূর্বাভাস দিল আলিপুর আবহাওয়া দফতর। সঙ্গে কলকাতা-সহ বিভিন্ন জেলায়, সেই সঙ্গে দার্জিলিং-কালিম্পঙে ও ছিঁটেফোঁটা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। তবে মেঘলা আকাশ কেটে গেলে আবার জাঁকিয়ে শীত পড়ার সম্ভাবনা আছে বলে হাওয়া অফিস মনে করছে ।

বুধবার বড়দিনে যা তাপমাত্রা ছিল তার পর দিন অর্থাৎ বৃহস্পতিবারই তাপমাত্রা কিছুটা বেড়েছে। বুধবারের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের চেয়ে এক ডিগ্রি কম এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মঙ্গলবার কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৩.৫ (-৩) ডিগ্রি সেলসিয়াস, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৪.২ ডিগ্রি। পশ্চিমি ঝঞ্ঝা এবং একটি উচ্চচাপ বলয়ের জোড়া ফলাতেই বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই পশ্চিমবঙ্গের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে। তবে মাঝে মধ্যে মেঘ সরে গিয়ে হালকা রোদেরও দেখা মিলছে অনেক জায়গায়। আলিপুরের পূর্বাভাস মতো বৃহস্পতিবার আবার কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের কিছু জেলায় ছিটেফোঁটা বৃষ্টিপাতও হয়েছে
এবারে অন্য বছরের মতো বড়দিনে হাড় কাঁপানো ঠান্ডা না থাকায় ছুটির আনন্দ যেন বেশ কয়েক গুণ বেড়ে গিয়েছিল।

মঙ্গলবার রাত থেকেই শহরে ভিড় ছিল। সকাল হতেই তা যেন আরও কয়েক গুণ বেড়ে যায়। ভিক্টোরিয়া,পার্ক স্ট্রিট চিড়িয়াখানা, ময়দান ক্রমশ ভরে ওঠে মানুষে মানুষে। ভি়ড জমিয়েছিলেন বিদেশি পর্যটকরাও। উৎসবের মরসুমে যাতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, সে দিকে কড়া নজর ছিল কলকাতা পুলিশের।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment