কলকাতা 

সিএএ ও এনআরসি বাতিল না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে , দলের প্রতিষ্ঠা দিবস, নাগরিক অধিকার দিবস হিসাবে পালিত হবে ঘোষণা মমতার

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : সংশোধিত নাগরিক আইন প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত আন্দোলন চলবে । কোনোভাবেই মোদী সরকারকে এই আইন লাগু করতে দেওয়া যাবে না । সমগ্র দেশজুড়ে এই আইনের বিরুদ্ধে জনমত সক্রিয় হয়েছে । এখনও সময় আছে এই আইন প্রত্যাহার করুন , নইলে পালাবার পথ খুঁজে পাবেন না । আজ শুক্রবার বিকেলে পার্কসার্কাস ময়দানে তৃণমূল কংগ্রেস আয়োজিত সিএএ ও এনআরসি বিরোধী সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এই ভাষাতেই মোদী-অমিত শাহদের হুঁশিয়ারি দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

এর আগে দলীয় বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন , সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিক পঞ্জি -এর বিরোধিতা যেমন চলছিল, তেমনই চালিয়ে যেতে হবে । তৃণমূলের টিকিটে নির্বাচিত সব বিধায়ক ও সাংসদকে এ দিনের বৈঠকে ডাকা হয়েছিল। ডাকা হয়েছিল জেলা এবং রাজ্য নেতৃত্বকেও। বৈঠক শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে এসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই জানান সে কথা। তবে এ দিনের সাংবাদিক সম্মেলনে নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহের প্রতি মমতার আক্রমণের সুর ছিল অপেক্ষাকৃত নরম। অমিত শাহকে নিয়ে সে ভাবে কোনও মন্তব্য এ দিন করেননি তিনি। আর প্রধানমন্ত্রী মোদীর উদ্দেশে তাঁর আবেদন— ‘‘আপনি গোটা দেশের প্রধানমন্ত্রী, আপনি শুধু বিজেপির প্রধানমন্ত্রী নন। আপনাকে আমি অনুরোধ করব, দয়া করে সিএএ এবং এনআরসি বাতিল করুন।’’

সিএএ এবং এনআরসির বিরোধিতায় যা চলছে দেশ জুড়ে, তা দেখার পরে বিজেপি সরকারের উচিত সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করা— মত মমতার। ‘জেদাজেদি করবেন না’, বিজেপির উদ্দেশে বার্তা মমতার। তিনি বলেন, ‘‘মাঝে মাঝে গণআন্দোলনের চাপে মাথা নত করতে হয়।’’ তার পরেই বলেন, ‘‘আচ্ছা মাথা নত করতে হবে না, শুধু বলে দিন সিএএ বাতিল।’’

এ দিনের সাংবাদিক সম্মেলনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছেন, ২৩ ডিসেম্বর কলকাতা বাদ দিয়ে রাজ্যের সব মহকুমা সদরে মিছিল-সভা করবে তৃণমূল। তার পরের দিন অর্থাৎ ২৪ ডিসেম্বর ফের কলকাতায় মিছিল হবে বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন। ইতিমধ্যেই সিএএ এবং এনআরসি বিরোধিতায় কলকাতা ও হাওড়া জুড়ে তিনটে মিছিল করেছেন মমতা। কিন্তু ২৪ তারিখ স্বামী বিবেকানন্দের ভিটে থেকে বেলেঘাটার গাঁধী ভবন পর্যন্ত মিছিলের ডাক দেওয়া বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ তার আগের দিন অর্থাৎ ২৩ ডিসেম্বর কলকাতায় মিছিল করবেন বিজেপির সর্বভারতীয় কার্যকরী সভাপতি জে পি নাড্ডা।

২৬ ডিসেম্বর দমদম ও কামারহাটি অঞ্চলে এবং ২৭ ডিসেম্বর সিঙ্গুর থেকে তারকেশ্বর পর্যন্ত মিছিল হবে বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন। আর ২৮ ডিসেম্বর রাজ্যের প্রত্যেকটি বিধানসভা কেন্দ্রে তিনি দলকে পথে নামার নির্দেশ দিয়েছেন। ১ জানুয়ারি তৃণমূলের প্রতিষ্ঠা দিবস। মমতা বলেন, ‘‘এ বারের প্রতিষ্ঠা দিবসকে আমরা নাগরিকদের উদ্দেশে উৎসর্গ করছি। নাগরিক অধিকার দিবস হিসেবে পালিত হবে।’’

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment