কলকাতা 

ঘুম ভাঙল প্রদেশ কংগ্রেসের তিন গান্ধীর স্মরণে সেমিনার করছেন সোমেন-প্রদীপরা

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সেখ ইবাদুল ইসলাম : এবছর দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে মহাত্মা গান্ধীর সার্ধশতবর্ষ । এআইসিসি থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পর্যন্ত মহাত্মাজির সার্ধশতবর্ষ নিয়ে নানা অনুষ্ঠান করলেও কোনো এক অজানা কারণে বড় ধরনের কোনো অনুষ্ঠান করেনি প্রদেশ কংগ্রেস । আবার দেশের প্রয়াত রাজীব গান্ধীর ৭৫ তম জন্ম বার্ষিকীও ২০ আগষ্ট ছিল , অন্যদিকে ইন্দিরা গান্ধীর জন্মদিন ছিল ১৯ নভেম্বর । এই তিন গান্ধীকে  এবার এক সেমিনারের মাধ্যমে স্মরণ করতে চলেছে প্রদেশ কংগ্রেস । প্রদেশ কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে আগামী ১৬ ডিসেম্বর কলকাতার মুসলিম ইনস্টিটিউটে মহাত্মা গান্ধী , রাজীব গান্ধী ও ইন্দিরা গান্ধী এবং বাংলাদেশের বিজয় দিবসের স্মরণে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে ।

হঠাৎ করে তিন গান্ধীকে অকালে কেন স্মরণ করা হচ্ছে তাঁর কোনো ব্যাখ্যা দেওয়া হয়নি । আসলে প্রদেশ নেতৃত্ব বুঝে উঠতে পারছেন না কী করবেন ? কারণ তাঁদের রাজনৈতিক কর্মকান্ড এখন তেমনভাবে মানুষ নিচ্ছে না । উপরন্ত আসাদউদ্দিন ওয়াইসির মিম যেভাবে উত্তরবঙ্গে ঘাঁটি গেড়েছে তাতে করে প্রদেশ কংগ্রেসের অসিত্ব যে খুব তাড়াতাড়ি শেষ হয়ে যাবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না । বিশেষ করে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র পশ্চিমবাংলার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্ধার্থ শংকর রায়ের জন্মশতবর্ষ অনুষ্ঠান এড়িয়ে গিয়ে কংগ্রেসকে বাঙালি মুসলিম সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছেন ।সোমেনবাবু ওই অনুষ্ঠানে না এসে নিজের দলেরই ক্ষতি করেছেন । সোমেন মিত্রের মনে রাখা উচিত পশ্চিমবাংলার সংখ্যালঘু সমাজ এখনও সিদ্ধার্থশংকর রায়কে বিশ্বাস করে । তারা মনে করে সত্যিকার অর্থে কেউ যদি বাঙালি মুসলিম সমাজের উন্নতি করে থাকেন তিনি হলেন সিদ্ধার্থ শংকর রায় । তাই বাংলার জনরব নিউজ পোর্টাল ওই সভায় পশ্চিমবাংলার সব কটি বড় মুসলিম সংগঠনের প্রথম সারির নেতারা উপস্থিত ছিলেন । সেই অনুষ্ঠানে না গিয়ে সোমেন মিত্র শুধু ভুল করেননি , রাজনৈতিকভাবে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছেন বললে অত্যুক্তি হবে না । রাজ্যের মাটি থেকে হারিয়ে যাওয়া কংগ্রেস সংগঠন চাঙ্গা করতে হলে সংখ্যালঘুদের সমর্থন পাওয়া জরুরি । কিন্ত সেদিক না হেঁটে সোমেন –প্রদীপরা যে পথে হাঁটছেন তাতে প্রদেশ কংগ্রেস অফিসটা ভূতুড়ে বাড়িতে পরিণত হতে বেশি সময় লাগবে না ।

মুসলিম ইনস্টিটিউটে তিন গান্ধী ও বাংলাদেশ বিজয় উৎসব পালন করলে সত্যিকার অর্থে এই রাজ্যে সংখ্যালঘু সমাজের মন পাওয়া যাবে না । মহাত্মা গান্ধীর ১৫০ বছর ধূমধামের সঙ্গে পালন করা উচিত ছিল । প্রদেশ কংগ্রেস তো ইন্দিরা গান্ধী জন্ম শতবর্ষ খুব বড় করে পালন করেছে বলে মনে পড়ছে না । রাজীব গান্ধীর জন্মদিনে বিধানভবনে গুটিকয় কর্মীকে নিয়ে প্রতিকৃতিতে মালা দেওয়া ছাড়া এতদিন ধরে প্রদেশ কংগ্রেস কিছুই করেনি । ইন্দিরা গান্ধী ধর্মনিরপেক্ষ ভাবমূর্তি তেমনভাবে তুলে ধরতে পারেনি প্রদেশ কংগ্রেস । ফলে আজকের প্রজন্মের কাছে ইন্দিরা রাজীব পৌছাতে পারেনি । এরজন্য সরাসরি দায়ী প্রদেশ কংগ্রেস ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment