কলকাতা 

বিধানসভায় রাজ্যপালকে বয়কটের পথে তৃণমূল , ”আমি কোনও রবার স্টাম্প বা পোস্ট অফিস নই “ : জগদীপ ধনকড়

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়কে বয়কট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শাসক তৃণমূল কংগ্রেস । রাজ্যপালের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে দুদিন বিধানসভা বন্ধ রাখার পর আগামী কাল বৃহস্পতিবার বিধানসভার অধিবেশন ফের চালু হতে চলেছে । তবে রাজ্যপাল জানিয়েছেন তিনি বৃহস্পতিবারে আবার বিধানসভায় যাবেন । কিন্ত জানা গেছে , রাজ্যপালকে অভ্যর্থনা জানাতে নাও উপস্থিত থাকতে পারেন অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। শাসক দল সূত্রে খবর, অধ্যক্ষ ছাড়াও, ডেপুটি স্পিকার সুকুমার হাঁ, পরিষদীয় রাষ্ট্রমন্ত্রী তাপস রায় সহ কেউই বিধানসভায় হাজির থাকবেন না। তবে প্রকাশ্যে মুখ খুলতে নারাজ শাসকদল।

বুধবার টুইট করে রাজ্যপাল জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বিধানসভায় পৌঁছবেন তিনি৷ জানা গিয়েছে, রাজ্যপালকে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য শাসক শিবিরের কোনও প্রতিনিধি থাকবেন না বিধানসভায়। সম্ভবত বিধানসভার সচিব রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়কে অভ্যর্থনা জানাবেন। বৃহস্পতিবার দুপুর দুটোয় বিজনেস অ্যাডভাইজারি বা বি এ কমিটির বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। রাজ্যপালের আসার খবরে সেই কমিটির বৈঠক বাতিল করা হয়েছে আগামীকাল। শুক্রবার সকাল ১০টায় বিধানসভা অধিবেশন শুরু হওয়ার আগে হবে সেই বি এ কমিটির বৈঠক। রাজ্যপালের আগমনের খবরেই বাতিল করা হয়েছে বিজনেস অ্যাডভাইজারি কমিটির বৈঠক।

মঙ্গলবার নজিরবিহীনভাবে ২ দিনের জন্য অধিবেশন স্থগিত করেছেন অধ্যক্ষ বিমান বন্দোপাধ্যায়। অধিবেশন মুলতুবি রাখার সিদ্ধান্তের পিছনে রাজভবনের ভূমিকাকে মঙ্গলবার দায়ী করেছেন তিনি। অধ্যক্ষর বক্তব্য, ‘‘রাজ্যপালের ছাড়পত্র-সহ বিল বিধানসভায় না পৌঁছনোয় চলতি অধিবেশনে আলোচনার জন্য তা পেশ করা গেল না। তাই অধিবেশন বন্ধ রাখতে হল।’’

বিবৃতিতে তিনি বলেন,”আমি কোনও রবার স্টাম্প বা পোস্ট অফিস নই। যে যা বলবে তা কোন কিছু না বুঝে শুনেই সংবিধান না মেনেই আমি করে দেব।” রাজ্যপাল আরও বলেন, “কোনও বিল সম্পর্কে খুঁটিনাটি খোঁজখবর নেওয়া এবং কোন ধরনের দেরি না করে তাতে অনুমোদন দেওয়া রাজ্যপালের কর্তব্য।” এরপরই তিনি জানান, বৃহস্পতিবার বিধানসভায় লাইব্রেরি দেখতে তিনি যাবেন৷


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment