প্রচ্ছদ 

মমতার জোট সূত্র মেনে ছুটছে রাহুলের ঘোড়া,মসনদ হারানোর ভয়ে দিশেহারা বিজেপি!

শেয়ার করুন
  • 41
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিবেদকঃ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপিকে হারানোর যে ফর্মুলা দেশের সব বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিকে দিয়েছেন,সেই সূত্র মেনেই কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী আগামী নির্বাচনগুলিতে জোট বদ্ধ  হওয়ার কাজ প্রায় সেরেই ফেলেছেন। এ বছরের শেষের দিকে রাজস্থান,মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিশগড়ে নির্বাচন হতে চলেছে। সেই নির্বাচন হতে এখনও কয়েক মাস দেরি। তার আগেই জোটের কাজ প্রায় সেরে ফেলেছেন কংগ্রেস সভানেত্রী রাহুল গান্ধী। মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিশগড়ে মূল লড়াই কংগ্রেস ও বিজেপি-র মধ্যে হলেও দলিত ভোট একটা ফ্যাক্টর। আর এই সব দলিত ভোটের উপর মায়াবতীর বিএসপির একটা প্রভাব কাজ করে। তাঁর নিজস্ব ভোট ব্যাঙ্ক রয়েছে। সেটা যদিও খুব সামান্য তবু তা হারাতে নারাজ কংগ্রেস।

এই দুই রাজ্যের প্রদেশ কংগ্রেস ইতিমধ্যে জোট নিয়ে আলোচনা শুরু করলে তারা সমাধান সূত্র বের করতে পারছিল না। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী সরাসরি মায়াবতীর সঙ্গে কথা বলে জোটের চূড়ান্ত সিলমোহর দিয়েছেন। আর এখন থেকেই জোটের শরীক হিসেবে মায়াবতীর দল ও কংগ্রেস যৌথভাবে প্রচার শুরু করে দিতে চাইছে। জানা গেছে, মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিশগড়ে মায়াবতীর সঙ্গে আসন রফা চূড়ান্ত করে ফেলেছে কংগ্রেস সভাপতি। তবে মায়াবতীরা রাজস্থানেও আসন রফা করতে চাইছে,সেখানে রাজস্থান কংগ্রেসের নেতা শচীন পাইলটের আপত্তি আছে ,সেক্ষেত্রে কংগ্রেস সভাপতি মায়াবতীকে আশ্বাস দিয়েছেন রাজস্থানের বিষয়টিও মিটে যাবে। তিনি নিজে রাজস্থান কংগ্রেসের সঙ্গে বিএসপির জোট নিয়ে কথা বলবেন।

অন্যদিকে আগামী লোকসভা নির্বাচনে দিল্লিতে আপ এবং কংগ্রেসের মধ্যে জোট হতে যাচ্ছে। যদিও জোটের বিষয়ে দিল্লি প্রদেশ কংগ্রেসের আপত্তি ছিল তা সত্ত্বে রাহুল গান্ধীর হস্তক্ষেপে সেই সমস্যা মিটেছে। এখানে মোট ৭টি লোকসভা আসন আছে রাহুল গান্ধীর সমাধান সূত্র মতে ৪টি আসনে লড়বে আপ, আর ৩টি আসনে লড়বে কংগ্রেস। এই প্রস্তাব আপ মেনে নিলে দিল্লিতে বিজেপিকে হারানো সহজ হবে বলে রাজনৈতিক মহল মনে করছে। সব মিলিয়ে রাহুল গান্ধীর জোটের ঘোড়ার সাফল্যে বিজেপি শংকিত হয়ে পড়ছে। আর এই ধারাবহিকতা রাহুল গান্ধীর জোট রাজনীতিতে বজায় থাকলে আগামী লোকসভায় বিজেপিকে ক্ষমতা হারাতে হতে পারে।


শেয়ার করুন
  • 41
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment