জেলা 

বিজেপি-র টার্গেট পশ্চিম মেদিনীপুর, তাই এবার সুশান্ত ঘোষ কী গেরুয়া শিবিরে!

শেয়ার করুন
  • 10
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধিঃ পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপি ঝাড়গ্রাম ও পুরুলিয়ায় তৃণমূলকে বেশ খানিকটা ধাক্কা দিয়েছে। এবার বিজেপির টার্গেট পশ্চিম মেদিনীপুর। বেশ কয়েক বছর ধরে এই জেলায় দিলীপ ঘোষ সংগঠনের কাজ করে আসছে। যেহেতু এটা দিলীপ ঘোষের নিজের জেলা তাই তিনি খড়্গপুর সহ বেশ কয়েকটি এলাকায় বিজেপির সংগঠনকে জোরদার করতে পেরেছেন। কিন্ত চন্দ্রকোনা ঘাটাল ,গড়বেতা এলাকায় সেভাবে বিজেপি সংগঠন করতে পারেনি। এই দিকে সংগঠন করার জন্য বিজেপি বিভিন্নভাবে চেষ্টা করে চলেছে। বিজেপি দলের মূল টার্গেট হল অন্য দল থেকে হেভিওয়েট কোন নেতাকে ভাঙিয়ে এনে সংগঠনের কাজে লাগানো। এবার তাদের সামনে সেই সুযোগ এসে গেছে। পশ্চিম মেদিনীপুরের এক সময়কার দোদন্ডপ্রতাপ বাম নেতা সুশান্ত ঘোষকে এবার সিপিএম জেলা কমিটির সম্পাদকমন্ডলী থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। এমনিতেই কঙ্কাল কান্ডে গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে সুশান্ত ঘোষ দলের নেতাদের কাছে ব্রাত্য। এবার দলের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার পর এই বাম নেতার রাজনৈতিক অস্তিত্ব নিয়ে এখন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

আর এই সুযোগটাকে মোক্ষমভাবে কাজে লাগাতে চাইছেন বিজেপির নেতারা। তারা মনে করছেন,সুশান্ত ঘোঘের গড়বেতা,চন্দ্রকোনা,ঘাটাল এলাকায় এখনও ভাল জনসংযোগ রয়েছে। তাঁর এই জনসংযোগকে ঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলে লাভ হবে বিজেপি। তাই বিশেষ সূত্রে জানা গেছে,বিজেপির পক্ষ থেকে সুশান্তকে দলে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। যদিও সুশান্ত ঘোষের পক্ষ থেকে কিংবা তাঁর ঘনিষ্ট মহল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার কোন ইঙ্গিত এখনও দেওয়া হয়নি। তবে সুশান্ত ঘোষ বিজেপিতে যোগ দিলে ‍বিজেপি সঙ্গে তাঁরও লাভই হবে। কারণ সুশান্ত ঘোষ বিজেপিতে যোগ দিলে তাঁর যে রাজনৈতিক পুর্ণঃজন্ম হবে তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। আর পশ্চিম মেদিনীপুর সহ সমগ্র জঙ্গল মহলে  বিজেপি যে সাংগঠনিকভাবে আরও শক্তিশালী হবে তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই।


শেয়ার করুন
  • 10
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment