কলকাতা 

কেন্দ্রীয় বাহিনীর কড়া নিরাপত্তায় দেশের ১০ বিধানসভা ও ৪ লোকসভা আসনে চলছে উপনির্বাচন

শেয়ার করুন
  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ কেন্দ্রীয়বাহিনীর কড়া নিরাপত্তায় নির্ধারিত সময় সকাল ৭ টা থেকেই শুরু হয়েছে দেশের ১০ টি বিধানসভা ও ৪ টি লোকসভা কেন্দ্রের    উপনির্বাচন। এগুলির মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের মহেশতলা বিধানসভা কেন্দ্র ছাড়াও রয়েছে, ঝাড়খণ্ডের গোমিয়া ও সিল্লি, বিহারের জোকিহাট, পঞ্জাবের শাহকোট, কেরলের চঙ্গানুর, মেঘালয়ের আমপাতি, উত্তরপ্রদেশের নুরপুর, উত্তরাখন্ডের থারালি, মহারাষ্ট্রের পালুস-কাডেগাঁও । উপ-নির্বাচন হচ্ছে উত্তরপ্রদেশের কৈরানা ও মহারাষ্ট্রের পালঘর, ভান্ডারা- গোন্ডিয়া ও নাগাল্যান্ডের একমাত্র লোকসভা আসনেও। তবে ইভিএম খারাপ হওয়ার কারণে মহেশতলা বিধানসভার  ১৫৭ ও ২০২ দু’নম্বর করছে দীর্ঘক্ষণ ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া বন্ধ থাকে। পরে অবশ্য শুরু হয় ভোটগ্রহণ।

দক্ষিণ ২৪ পরগনা মহেশতলায় তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক কস্তুরি দাসের মৃত্যু হলে এ আসনটি ফাঁকা হয়ে যায়। এবার দল তাঁরই স্বামী দুলাল দাসকে প্রার্থী করেছে। তিনি মহেশতলা পৌরসভা চেয়ারম্যানও। অন্যদিকে বিজেপির প্রার্থী  হয়েছেন, প্রাক্তন সিবিআই কর্তা সুজিত ঘোষ। সিপিএমের হয়ে দাঁড়িয়েছেন ডিওয়াইএফআই-এর রাজ্য কোষাধ্যক্ষ প্রভাত চৌধুরী।

সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত ভোটে অশান্তির কথা মাথায় রেখে, সুষ্ঠুভাবে উপনির্বাচন শেষ করতে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। মহেশতলা উপনির্বাচনের জন্য মোট ১০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী এসেছে। রাস্তা ও ভোটকেন্দ্রে রয়েছে ৯ কোম্পানির বাহিনী। নির্বাচনে প্রতিটি বুথে ৪-৫ জন আধাসেনা ও একজন করে লাঠিধারী পুলিশ রয়েছেন। মোবাইল পেট্রোলিং ভ্যান আছে ৮টি, ৫টি কুইক রেসপন্স টিম।  এছাড়া ৯টি পয়েন্ট থেকে চলছে নাকা চেকিং ।

তবে দেশের যে ১০ টি বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন হচ্ছে তার মধ্যে সবার নজর থাকবে মেঘালয়ের আমপাতি বিধানসভা কেন্দ্রের দিকে। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সাংমা আসনটি ছেড়ে দেওয়ায় এখানে উপনির্বাচন হচ্ছে। এখানে মূল লড়াই কংগ্রেস ও বিজেপির মধ্যে। যদি এই আসনটিতে কংগ্রেস জয়ী হয়, তাহলে মেঘালয়ে একক বৃহত্তম দল হবে কংগ্রেস। সেক্ষেত্রে ওই রাজ্যে পালাবদল ঘটতে পারে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।


শেয়ার করুন
  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment