দেশ 

পাঁচ অনুপ্রেবশকারীর মৃতদেহ পাকিস্থানকে ফিরিয়ে নিতে অনুরোধ করল ভারত ; নীরব ইসলামাবাদ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : শুক্রবারই পর্যটক এবং অমরনাথ যাত্রার পুণ্যার্থীদের কাশ্মীর ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত আধাসেনা। তার জেরে কাশ্মীর  জুড়ে নানা গুজব-বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে। রয়েছে চাপা উত্তেজনা। গুঞ্জন ছড়িয়েছিল, সংবিধানের ৩৭০ ধারা বা ৩৫এ ধারা অথবা দুটিই খারিজ করে দিতে পারে কেন্দ্র। রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক সেই সম্ভাবনা খারিজ করে দিলেও তা নিয়ে কেন্দ্রের তরফে স্পষ্ট কোনও বার্তা না থাকায় উপত্যকার আম জনতার মধ্যে সেই সন্দেহ এখনও দূর হয়নি।

এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আবার কেরন সেকটরে নতুন করে উত্তেজনার খবর পাওয়া গেছে । গত দু’দিনে জম্মুর কেরন সেক্টরে সেনা জওয়ানদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত হয়েছে এই জঙ্গি ও পাক সেনা জওয়ানরা।তাদের দেহ পাকিস্তানে ফিরিয়ে নিতে বললেও ইসলামাবাদের তরফে এখনও কোনও সাড়া মেলেনি বলে সেনা সূত্রে খবর।

শনিবারই ভারতীয় সেনা জানিয়েছিল, নিয়ন্ত্রণ রেখা কেরন সেক্টর দিয়ে ৩১ জুলাই রাত পেরিয়ে ১ অগস্ট ভোর রাতের দিকে পাকিস্তানের বর্ডার অ্যাকশন টিমের (ব্যাট) সাত থেকে আট জনের একটি দল ভারতে ঢোকার চেষ্টা করে। সেই সঙ্গে ভারতীয় সেনাকে ব্যস্ত রাখতে পাকিস্তানের দিক থেকে ভারী গোলাবর্ষষণ শুরু হয়। ভারতও তার প্রত্যুত্তর দেয়। অন্য দিকে কর্তব্যরত সেনা জওয়ানরা ওই জঙ্গি দলটিকেও বাধা দেয়। জঙ্গিরা গুলি চালায়। পাল্টা গুলিতে নিহত হয় ব্যাটের পাঁচ সদস্য। তাদের দেহ উদ্ধার হয়েছিল শনিবারই। আর রবিবার তাদের দেহ পাকিস্তানে ফেরত নিতে বলল ভারতীয় সেনা।

সেনা সূত্রে জানানো হয়েছে, শান্তির বার্তা দিয়ে ওই পাঁচটি দেহ পাকিস্তানকে ফেরত নিতে বলা হয়েছে। কিন্তু পাক সেনা বা সরকারের তরফে এখনও সদর্থক কোনও বার্তা এসে পৌঁছয়নি। বরং সীমান্তে অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘন করে গোলাগুলি চালানো অব্যাহত রেখেছে পাকিস্তান।

পাক সেনার অফিসার-জওয়ান এবং জঙ্গিদের নিয়ে গঠিত পাকিস্তানের ব্যাট বাহিনী। মূলত জম্মু-কাশ্মীরে সীমান্তের ওপারে জঙ্গি কার্যকলাপ চালিয়ে যাওয়া এবং লাগাতার ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালিয়ে যায় এই বাহিনী। শনিবারও সে ভাবেই ভারতে ঢোকার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয় তারা। ভারতীয় সেনার পদস্থ এক কর্তা জানিয়েছেন, পাকিস্তান যে বরাবর জঙ্গি কার্যকলাপে মদত দিচ্ছে, এই ঘটনা থেকে তা আরও এক বার স্পষ্ট হল। নিয়ন্ত্রণ রেখায় যতই গুলি চালানো বা অনুপ্রবেশের চেষ্টা করুক পাকিস্তান, ভারতীয় সেনা তা রুখে দেবে।

আবার অমরনাথ যাত্রার পথে স্নাইপার রাইফেল, ল্যান্ড মাইন ও বিস্ফোরক উদ্ধার হওয়ায় উত্তেজনার পারদ চড়েছে। জঙ্গি হানার আশঙ্কা, বা বড়সড় জঙ্গিদমন অভিযান হতে পারে বলেও মনে করছেন অনেকে। এই পরিস্থিতিতে কেরন সেক্টরের এই উত্তেজনা নতুন মাত্রা যোগ করেছে উপত্যকায়। সৌজন্যে : ডিজিটাল আনন্দবাজার


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment