দেশ 

দেশজুড়ে প্রবল জনমতের চাপে ; সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির তোপের মুখে অবশেষে উন্নাও কান্ডে অভিযুক্ত বিধায়ককে দল থেকে বহিস্কার করল বিজেপি

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : উন্নাও গণধর্ষণ কান্ডটি ঘটেছে আজ থেকে দু বছর আগে । কিন্ত বিজেপি বিধায়ক মূল অভিযুক্ত হওয়া সত্ত্বে তাকে বহিস্কার করার কথা একবারের জন্য ভাবেনি বিজেপি দল । বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির তোপের পর বিজেপি দল অবশেষে অভিযুক্ত বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিল । তাকে আজ বহিস্কার করা হয়েছে । কিন্ত গণধর্ষণ, খুনের মতো মারাত্মক অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও দলীয় স্তরে সেঙ্গারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে এত দেরি কেন? এই প্রশ্নই উঠে আসছে বিভিন্ন মহল থেকে। তা নিয়ে বিজেপিকে নিশানা করেছে কংগ্রেস।

সময়ে সঙ্গে একাধিক বাঁক নিয়েছে উন্নাও গণধর্ষণ কাণ্ড। গত ২৮ জুলাই রায়বরেলীর কাছে দুর্ঘটনায় পড়ে নির্যাতিতার গাড়ি, তাতে দু’জনের মৃত্যু হয়। হাসপাতালে এখনও মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা কষছেন নির্যাতিতা। গুরুতর জখম হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন তাঁর আইনজীবীও। আর এরপরেই, দেশ জুড়ে তোলপাড় শুরু হয়। অথচ, প্রবল জনমতের সামনে পড়েও এতদিন ধরে মুখে কুলুপ এঁটেছিলেন উত্তরপ্রদেশের বিজেপি নেতারা। নিজের রাজ্যের ঘটনা ঝড় তুলেছে দেশ জুড়ে। তা সত্ত্বেও উন্নাওকাণ্ড নিয়ে কোনও মন্তব্যই করেননি উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। মুখ খোলেননি উন্নাওয়ের সাংসদ সাক্ষী মহারাজ। আশ্চর্যজনক ভাবে নিশ্চুপ ছিলেন কেন্দ্রীয় নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী স্মৃতি ইরানী। এ দিন শেষ পর্যন্ত কুলদীপকে বহিষ্কারের ঘোষণা করেছে দল। কয়েকদিন আগে তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়েছে বলে জানিয়েছিল বিজেপি। তবে তা কবে করা হয়েছে তা জানাতে পারেনি গেরুয়া শিবির। অবশেষে, প্রবল চাপে পড়ে এ দিন সেঙ্গারকে বহিষ্কার করেছে বিজেপি।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment