জেলা 

নরেন্দ্রপুরে দম্পত্তি খুনের নেপথ্যে কী ব্যক্তিগত আক্রোশ খতিয়ে দেখছে পুলিশ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : দক্ষিণ ২৪ পরগণার নরেন্দ্রপুরে দম্পতি খুনের রহস্য ক্রমশ ঘনীভূত হচ্ছে। কী কারণে ওই খুন,তা এখনও স্পষ্ট নয়। যদিও পুলিশের অনুমান, ব্যক্তিগত আক্রোশের জেরেই ওই দম্পতি খুন হয়েছেন।

একইসঙ্গে নরেন্দ্রপুরের ওই জমিতে ব্যবসা সংক্রান্ত কোনও কারণ থাকতে পারেও বলে তদন্তকারীদের ধারণা। আততায়ীরা ওই দম্পতি অথবা বাড়ির মালিকদের পরিচিত কেউ হতে পারে। খুনের ঘটনায় সুপারি কিলারদের জড়িত থাকার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছেন না তদন্তকারীরা।

বুধবার নরেন্দ্রপুরের খেয়াদহ ২ নম্বর গ্রামপঞ্চায়েতের তিউড়িয়ার ওই বাগানবাড়িতে গিয়ে ফরেন্সিক দল নমুনা সংগ্রহ করে। পুলিশ সূত্রে খবর, খুনের পর সুটকেসে ভরে দেহ লোপাটের চেষ্টা করেছিল আততায়ীরা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই চেষ্টা ব্যাহত হয়। বিভিন্ন জায়গায় পাওয়া রক্তের নমুনা থেকে তা অনুমান করছে পুলিশ। এমনকি ঘরে রক্তের দাগ মুছে ফেলার চেষ্টাও হয়েছে। নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, প্রথমে তাঁদের শ্বাসরোধ করার চেষ্টা হয়েছে। পরে মৃত্যু নিশ্চিত করতে শাবল জাতীয় কিছু দিয়ে মাথায় বারবার আঘাত করা হয়।

এ দিন ফরেন্সিক দল জানলা, দরজা এবং ঘরের বিভিন্ন অংশ থেকে নমুনা সংগ্রহ করেন। ঘরে থাকা আড়াই হাজার টাকাও পাওয়া গিয়েছে। ঘরে ধস্তাধস্তির চিহ্ন স্পষ্ট। খুনের সময় দুই থেকে তিনজন ছিল বলে মনে করছে পুলিশ। খুনের পর থেকে প্রদীপ বিশ্বাস এবং আল্পনা বিশ্বাসের মোবাইল ফোন নিয়ে গিয়েছে আততায়ী। যে ভাবে তাঁদের খুন করা হয়েছে, তা থেকে পুলিশের অনুমান, এই ঘটনায় দাগি দুষ্কৃতীরাও জড়িত থাকতে পারে।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment