দেশ 

বিজু জনতা দলের প্রত্যক্ষ সমর্থনে , সপা-বসপার-জেডি( ইউ) ও এআইডিএমকে-র ওয়াক-আউটে খুব সহজেই রাজ্যসভায় পাশ হয়ে গেল তাৎক্ষণিক তিন তালাক ফৌজদারী অপরাধ বিল

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : রাজ্যসভায় পাশ হয়ে গেল তিন তালাক বিল । এর ফলে তাৎক্ষণিক তিন তালাক দিলে  তা ফৌজদারী অপরাধ হিসাবে গণ্য হবে । রাজ্যসভায় বিলটি পাশ হল বিরোধী দলগুলির অনৈক্যের জন্য । আজ রাজ্যসভায় বিলটি পেশ করার পরেই বিরোধীরা বিলটিকে সিলেক্ট কমিটিতে পাঠানোর অনুরোধ করে।তা নিয়ে ভোটাভুটি শুরু হলে, বিলটি পুনর্বিবেচনার পক্ষে  ভোট দেন ৮৪ জন সাংসদ। তবে সেটির বিপক্ষে মত দেন ৯৯ জন সাংসদ। তাই আর বিলটি পাশ হতে সমস্যা হয়নি।

রাজ্যসভায় পাশ হয়ে যাবার  পর তিন তালাক বিলটিতে  রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ সই করলেই সেটি আইনে পরিণত হবে। যার পর তাৎক্ষণিক তিন তালাক প্রথা ফৌজদারি অপরাধ বলে গণ্য হবে। সে ক্ষেত্রে স্ত্রীকে তিন তালাক দিলে তিন বছরের কারাবাস হবে মুসলিম পুরুষদের।

এই বিলটি রাজ্যসভায় পাশ করাতে গেলে শাসক দলের ১২১ জন সদস্যের প্রয়োজন ছিল । সেখানে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের সদস্য সংখ্যা ১১৩। কিন্তু নীতীশ কুমারের সংযুক্ত জনতা দল (জেডিইউ) এবং অল ইন্ডিয়া আন্না দ্রাবিড় মুন্নেত্রা কাঝগম (এআইএডিএমকে)-এর মতো শরিক দল ওয়াক আউট করলে তাদের সদস্য সংখ্যা এসে দাঁড়ায় ১০৭-এ।

অন্য দিকে, সমাজবাদী পার্টি, বহুজন সমাজ পার্টি এবং তেলঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতির মতো বিরোধী দলে সাংসদরাও সভা ত্যাগ করলে, রাজ্যসভার মোট আসনসংখ্যা এসে ঠেকে ২৩৬-এ।

এ  ছাড়াও এ দিনের অধিবেশনে  ১৪ জন সাংসদ অনুপস্থিত ছিলেন। তাতে ভোটাভুটির সময় মোট আসন সংখ্যা আরও কমে দাঁড়ায় ২১৬-। সে ক্ষেত্রে বিল পাশ করাতে মাত্র ১০৯টি ভোটের প্রয়োজন ছিল কেন্দ্রীয় সরকারের।  সেইসসময় তাদের ত্রাতা হয়ে দাঁড়ায় নবীন পট্টনায়কের বিজু জনতা দল (বিজেডি)। এনডিএ-র শরিক না হওয়া সত্ত্বেও তিন তালাক বিলে সমর্থন দেন তাদের ৭ সাংসদ। তাতে তিন তালাক বিলের পক্ষে  সমর্থন গিয়ে ঠেকে ১১৩-তে। তার পর আর বিলটি পাশ করাতে আর সমস্যা হয়নি কেন্দ্রীয় সরকারের।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment