দেশ 

উন্নাও কান্ডে তীব্র ভাষায় যোগী সরকারকে আক্রমণ করলেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : উত্তরপ্রদেশের রায়বেরিলীতে উন্নাওয়ের ধর্ষিতা মহিলাসহ তার পরিবারের একাধিক সদস্য গাড়িতে করে যাওয়ার সময় ট্রাকের সঙ্গে ভয়াবহ দূর্ঘটনা হয় । এই দূর্ঘটনায় ধর্ষণ মামলার অন্যতম সাক্ষীর মৃত্যু হয় এবং নির্যাতিতা আশংকাজনক অবস্থায় মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে । ধর্ষিতার মায়ের অভিযোগ তাদের পরিবারকে শেষ করে দেওয়ার লক্ষে গাড়িতে পরিকল্পনামাফিক হামলা চালানো হয়েছে । আসলে ধর্ষণের অভিযোগ যার বিরুদ্ধে উঠেছে সে উত্তরপ্রদেশ বিধানসভার বিজেপির বিধায়ক । শাসক দলের বিধায়ক হওয়ার কারণে তিনি এই কাজ করার সাহস পেয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে । আর এ নিয়ে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে শোরগোল । সোমবার রাজ্যসভায় এই প্রসঙ্গ ওঠে এবং বিরোধীরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের বিবৃতি দাবি করে। হইচই হয় , শেষ পর্যন্ত অধিবেশন মুলতুবি করে দিতে হয় । এদিকে এই ঘটনা নিয়ে আগেই মুখ খুলেছিলেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী । আজ তিনি আবারও যোগী সরকারকে এই ইস্যুতে নিশানা করেছেন ।

টুইটারে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী লিখেছেন, ‘এক জন মহিলাকে ধর্ষণ করল এক বিজেপি বিধায়ক। পুলিশ হেফাজতে তার বাবাকেই পিটিয়ে খুন করা হল। গত বছর ঘটনার এক প্রধান সাক্ষীর মৃত্যু হয়। ওই ঘটনার সাক্ষী নির্যাতিতার কাকিমাও মারা গেলেন বার। তাঁর আইনজীবীও গুরুতর জখম হয়েছেন। এরপরেও বিজেপি সরকার ফিয়ার ফ্রি ইউপি প্রচার চালানোর ঔদ্ধত্য দেখিয়ে যাবে।

২০১৮ সালে প্রকাশ্যে আসে উন্নাও গণধর্ষণ কাণ্ড। জানা যায়, ২০১৭ সালের জুন মাসে চাকরি দেওয়ার নাম করে ১৬ বছরের ওই কিশোরীকে নিজের বাড়িতে ধর্ষণ করেন বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গার। নিয়ে থানায় অভিযোগ জানালেও লাভ হয়নি। উল্টে মেয়েটির বাবাকেই থানায় তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। শেষমেশ যোগী আদিত্যনাথের বাসভবনের সামনে গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যা করতে যান নির্যাতিতা তাঁর মা। তার ঠিক পরেই থানার মধ্যে রহস্যজনক ভাবে মৃত্যু হয় নির্যাতিতার বাবার। অভিযোগ, বিধায়কের ভাই অতুল সিংহ থানার মধ্যে তাঁকে পিটিয়ে খুন করেন।

বিষয়টি নিয়ে দেশ জুড়ে নিন্দা শুরু হলে কুলদীপ সেঙ্গার, তাঁর ভাই অতুল এবং তার সহযোগীদের গ্রেফতার করে পুলিশ। তদন্তে নেমে তাঁদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের মামলা দায়ের করে সিবিআই। শুরু হয় মামলাও। কিন্তু গত এক বছরে পরিস্থিতি অন্য দিকে মোড় নিয়েছে। বরং বয়স সংক্রান্ত ভুয়ো নথিপত্র জমা দেওয়ার অভিযোগে নির্যাতিতা তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধেই মামলা দায়ের করেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment