দেশ 

বিজেপি শাসিত উত্তরাখন্ডের ১৩২টি গ্রামে বিগত তিন মাসে কোনো কন্যা সন্তান জন্ম নেয়নি ; কন্যা ভ্রূণ হত্যা হচ্ছে দাবি সমাজকর্মীদের ; তদন্তে প্রশাসন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক :  মোদীজির স্বপ্নের প্রকল্প বেটি বাঁচাও , বেটি পড়াও তা দেশজুড়ে বাস্তবায়িত করার উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি । কিন্ত খোদ বিজেপি দল পরিচালিত  উত্তরাখন্ড রাজ্যের ১৩২টি গ্রামে গত তিন মাসে কোনো কন্যা সন্তান জন্ম গ্রহণ করেনি । কেন কন্যা সন্তান জন্মগ্রহণ করেনি । তার কারন জানতে গিয়ে ভয়াবহ চিত্র উঠে এসেছে সমাজকর্মীরা দাবি করছে । সমাজকর্মীদের অভিযোগ কন্যা ভ্রূণ হত্যার জন্যই  এই ঘটনা।

সরকারি তথ্য থেকে জানা যাচ্ছে, গত তিন মাসে ওই ১৩২ টি গ্রামে ২১৬ টি শিশুর জন্ম হয়েছে। যদিও এইসব সদ্যোজাতের মধ্যে নেই কোনও কন্যা সন্তান। এই রিপোর্টে জেলা প্রশাসনও বিপাকে পড়েছে। জেলাশাসক ড. আশিক চৌহান জানিয়েছেন, যেসব এলাকায় কন্যা সন্তান একেবারেই জন্ম নেয়নি কিংবা এক ডিজিটে রয়েছে, সেইসব জায়গাকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এলাকায় নজরদারি চালানো হচ্ছে। কারণ জানতে চেষ্টা করা হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

এর পাশাপাশি এলাকায় বিস্তারিত সার্ভে করে কারণ জানার চেষ্টা করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। এছাড়াও তিনি ‘আশা’ কর্মীদের সঙ্গে বৈঠকও করেছেন। তাঁদেরকে এলাকায় নজরদাবি চালাতে জোর দিয়েছেন। এরপর রিপোর্ট জমা দেওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন।

সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় সমাজ কর্মী কল্পনা ঠাকুর অভিযোগ করে বলেছেন, কন্যা সন্তানের জন্ম না হওয়ায় কন্যা ভ্রূণের হত্যা। সেই কারণে এই প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। তিন মাসে ১৩২ টি গ্রামে কোন কন্যা সন্তানের জন্ম হয়নি, এটা কখনও হতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

বিজেপি শাসিত রাজ্যেই কন্যা ভ্রূণের হত্যা নিয়ে তেমন কোনো উদ্যোগ সরকারের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে । আর তারই প্রেক্ষিতে এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে বলে সমাজকর্মী দাবি করেছেন ।

কোন গ্রামে কত শিশু জন্ম নিল, তাতে নারী-পুরুষ ব্যবধান কতটা কমল, তার হিসাব থাকে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের কাছে। তাদের সেই রিপোর্ট থেকেই সম্প্রতি এমন তথ্য সামনে এসেছে। জানা গিয়েছে, গত তিনমাসে উত্তরকাশীর ১৩২টি গ্রামে ২১৬ শিশু জন্ম নিয়েছে। যার মধ্যে, ডুন্ডা ব্লকের ২৭টি গ্রামে ৫১টি, ভাতওয়ারির ২৭টি গ্রামে ৪৯টি, নওগামের ২৮টি গ্রামে ৪৭টি, মোরির ২০টি গ্রামে ২৯টি, চিনিয়ালিসৌড়ের ১৬টি গ্রামে ২৩টি এবং পুরোলা ব্লকের ১৪টি গ্রামে ১৭টি শিশুর জন্ম হয়। কিন্তু তাদের মধ্যে একটিও শিশুকন্যা নেই।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment