কলকাতা 

অনশনের সাতদিনেও সমস্যার সমাধানে উদ্যোগী হয়নি রাজ্য সরকার ; তাই আন্দোলন আরও তীব্র করার আহ্বান UUPTWA

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : অনৈতিকভাবে বদলী হওয়া ১৪ জন শিক্ষকের বদলীর আদেশ প্রত্যাহার করতে হবে । একইসঙ্গে পিআরটি স্কেলে বেতন দেওয়ার দাবিতে উস্তি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা অনশন ও অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন । গত ১২ জুলাই থেকে সল্টলেকের বিধান রায়ের মূর্তির পাদদেশে শিক্ষকরা অবস্থানে বসেন । ১৩ জুলাই থেকে তারা ১৪জন শিক্ষকের বদলীর আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে আমরণ অনশনে বসেন । সেই অনশন কর্মসূচি আজ ৭দিনে পড়ল । বেশ কয়েক জন শিক্ষক অসুস্থ হয়ে পড়েন । তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় । কিন্ত সাতদিন পর আজ সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে , সরকারের পক্ষ থেকে এখনও কোনো ইতিবাচক সাড়া মেলেনি । তাই তাঁরা আন্দোলন আরও জোরদার করতে চলেছে ।

উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষে অনুপ কুমার সাউ সাংবাদিকদের বলেন,“ন্যায্য বেতনের দাবিতে আমাদের আন্দোলন চলছে। অন্যান্য রাজ্যের প্রাথমিকের শিক্ষক-শিক্ষিকারা যে হারে বেতন পান, আমাদের বেতন কাঠামোও তেমনই হওয়া উচিত।”
আন্দোলনকারীরা জানান, অন্যান্য রাজ্যের প্রাথমিকের শিক্ষকেরা ৯৩০০ থেকে ৩৪,৮০০ টাকার মধ্যে বেতন পেয়ে থাকেন। সেখানে তাঁরা ৫৪০০ থেকে ২৫৪০০ টাকা বেতন পান। এখানেও এই বেতন কাঠামো ঠিক করতে হবে। অভিযোগ, আন্দোলনকারী ১৪ জনকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বাড়ি থেকে অনেক দূরে বদলি করা হয়েছে। তাঁদের আগের জায়গায় ফিরিয়ে আনারও দাবি জানাচ্ছে উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন।
ইতিমধ্যেই বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতারা প্রাথমিকের শিক্ষকদের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন। শুক্রবার অনশনস্থলে যান শিলিগুড়ির মেয়র তথা সিপিএম নেতা অশোক ভট্টাচার্য। যদিও সংগঠনের পক্ষ থেকে অনুপ কুমার সাউ জানিয়েছেন, এই আন্দোলন সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক। যাঁরা পাশে দাঁড়াতে চাইছেন, তাঁদের স্বাগত।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment