কলকাতা 

কংগ্রেসের গড়ে ঘাস ফুল ফোটানোর জন্য দলে ও সরকারে গুরুত্ব বাড়ছে শুভেন্দুর

শেয়ার করুন
  • 6
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বুলবুল চৌধুরিঃ শুভেন্দু অধিকারি বাংলার রাজনৈতিক মহলে বহু চর্চিত নাম। পূর্ব-মেদিনীপুরের কাঁথির সন্তান শুভেন্দু কার্যত বাংলার বাম-বিরোধী রাজনীতির অন্যতম আইকন বলা যেতে পারে। তাঁর সাংগঠনিক ক্যারিশ্মার যে এখনও রাজ্য রাজনীতিতে বিকল্প নেই, তার প্রমান মুর্শিদাবাদ,মালদায়। জ্যোতিবাবু থেকে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য,মুকুল রায় বহু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেও এই দুই জেলা থেকে কংগ্রেসকে ক্ষমতা চ্যুত করতে পারেননি। তাই শেষ পর্যন্ত তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কংগ্রেসের এই দুই গড়ে ঘাস ফুল ফোটানোর দায়িত্ব তুলে দেন শুভেন্দু অধিকারির হাতে। তিনি এই গুরু দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই মুর্শিদাবাদের অধীর সাম্রাজ্যের দ্রুত পতন লক্ষ্য করা যায়। এরপর মালদাতেও একইভাবে কংগ্রেসের সাজানো বাগানে শুভেন্দু ঘাস ফুল ফুটিয়ে দেন। এসব কিছুই ছিল দলবদলের খেলায়। নির্বাচনে জিতে এসে ক্ষমতা দখল করা তখনও সম্ভব হয়নি। তাই হয়তো মেদিনীপুরের যুবরাজ সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন। পঞ্চায়েত নির্বাচন সেই সুযোগ এনে দিল।

সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনে মুর্শিদাবাদ,মালদা থেকে কংগ্রেস দল কার্যত ঘর ছাড়া হয়ে গেছে। দুই জেলায় কোথাও কংগ্রেস জেলা পরিষদের বলার মত আসন পায়নি। এক সময় যে জেলায় প্রতিটি পাড়ায় কংগ্রেস আধিপত্য দেখিয়েছে,সেই জেলাতে কংগ্রেসকে এখন দুরবীণ দিয়ে খুজতে হয়। এর ভবিষ্যৎ কী হবে সেবিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা না করে এ কথা বলা যেতেই পারেই শুভেন্দুর মত যুব নেতা ছিলেন বলেই আজ কংগ্রেসে গড়ে ঘাস ফুল ফোটানো সম্ভব হয়েছে।

অবশ্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও এই সহজ সত্যটি উপলদ্ধি করতে পেরেছেন। তাই আগামী লোকসভা নির্বাচনের আগে তিনি সরকার এবং দলে বিশেষ গুরুত্ব দিতে চলেছেন শুভেন্দু অধিকারিকে। শোনা যাচ্ছে,কয়েক সপ্তাহের মধ্যে রাজ্য মন্ত্রীসভায় রদবদল করতে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই মন্ত্রীসভায় আরও গুরুত্বপূর্ণ একটি বিশেষ দফতর শুভেন্দু অধিকারিকে দেওয়া হবে।


শেয়ার করুন
  • 6
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment