কলকাতা 

পঞ্চায়েত ভোট বাতিলের দাবিতে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ বুদ্ধিজীবী মঞ্চ

শেয়ার করুন
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ ফলাফল ঘোষণার পরেও রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে নতুন করে জটিলতা তৈরি হল। পঞ্চায়েত ভোট বাতিলের দাবিতে এবার কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হল বুদ্ধিজীবী মঞ্চ। আজ, সোমবার বুদ্ধিজীবী মঞ্চের তরফে কলকাতা হাইকোর্ট একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলাটি গ্রহণ করেছে আদালত। বুদ্ধিজীবী মঞ্চের অভিযোগ সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন করতে ব্যর্থ রাজ্য সরকার ও নির্বাচন কমিশন। যার ফলে অনেকেই গণতান্ত্রিক অধিকার সঠিকভাবে প্রয়োগ করতে পারেননি। তাই পঞ্চায়েত ভোট বাতিল করা হোক। আদালত মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে ৬ জুলাই।

মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া থেকে শুরু করে  ফলাফল ঘোষণা পর্যন্ত এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে আইনি জটিলতা কম হয়নি। মামলা সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত গড়িয়েছিল। শেষ পর্যন্ত অবশ্য ভোট পরিচালনার ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনের অধিকারকেই গুরুত্ব দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। আদালতের নির্দেশেই ১৪ তারিখ রাজ্যে একদফায় পঞ্চায়েত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। প্রশাসন সতর্ক থাকা সত্ত্বেও এবারের ভোটেও রক্তপাত এড়ানো সম্ভব হয়নি। পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন ও ভোট পরবর্তী হিংসা মিলিয়ে রাজ্য ২৫ জনের মতো লোক প্রাণ হারিয়েছেন। বুদ্ধিজীবী মঞ্চের দাবি, ভোটের নামে অবাধ সন্ত্রাস হয়েছে রাজ্যজুড়ে। কোথাও বিরোধী এজেন্টদের বুথ থেকে মারধর করে বের করে দেওয়া কিংবা কোথাও আবার ব্যালটবাক্স ছিনতাই করে পুড়িয়ে দেওয়া সহ নানা অভিযোগ উঠে এসেছে। ফলে রাজ্যবাসী সঠিকভাবে গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করতে পারেনি। সেজন্যই পঞ্চায়েত ভোট বাতিলের দাবি জানিয়েছে তারা। বুদ্ধিজীবী মঞ্চের এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ২৯ জুন কমিশন ও রাজ্য সরকারকে হলফনামা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি। আগামী ৬ জুলাই পরবর্তী শুনানি। জানা গিয়েছে বুদ্ধিজীবী মঞ্চের তরফ মামলাটি করেছেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু পরিবারের সদস্য চন্দ্র বসু। যিনি একজন বিজেপি নেতা। গত বিধানসভা নির্বাচনে তিনি ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। তাই রাজনৈতিক মহলের ধারণা বুদ্ধিজীবী মঞ্চকে সামনে রেখে আসলে মামলাটি বিজেপিই করেছে।

 


শেয়ার করুন
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment