দেশ 

মেয়ে বলে বাবার কাছে অবহেলিত হয়েছি দাবি করলেন বিজেপি বিধায়কের কন্যা সাক্ষী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : নারী স্বাধীনতার জন্য বিজেপি নেতা কর্মী কাজ করে চলেছেন বলে দাবি করে থাকেন । এমনকি মুসলিম নারীদের কষ্ট তাদের সহ্য হয় না বলেই তিন তালাক বিল সংসদে পেশ করেছে । কিন্ত নিজের বাড়ির মেয়েদের কী স্বাধীনতা দিয়েছেন বিজেপি নেতারা বা বিধায়ক সাংসদরা ! না দেননি । অভিযোগ কারী কোন বিরোধী দল নয় , খোদ উত্তরপ্রদেশের বেরিলীর বিধায়ক কন্য। তিনি সম্প্রতি এক দলিত যুবককে বিয়ে করার কারণে বাবার ভয়ে লুকিয়ে বেড়াচ্ছেন । কয়েকদিন আগে এলাহাবাদ হাইকোর্টে নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছে বিধায়ক কন্য ও তার স্বামী । সেই আবেদন জানাতে গিয়ে আদালত চত্বরেই তাদের উপর হামলা হয় ।

গতকাল এক সংবাদ মাধ্যমকে সাক্ষৎকার দিতে গিয়ে বিজেপি বিধায়কের কন্য সাক্ষী বলেছেন , মেয়ে বলে ছোটবেরা থেকে সে বাড়িতে অবহেলিত বঞ্চিত । সাক্ষীর ক্ষোভ, ‘‘আমার অনেক স্বপ্ন ছিল। আমি আরও পড়াশোনা করতে চেয়েছিলাম।’’ কিন্তু পছন্দের বিষয় বেছে নেওয়ার স্বাধীনতা তাঁর ছিল না। জোর করে তাঁকে এমন একটি কলেজে মাস কমিউনিকেশন পড়তে পাঠানো হয়, যেখানে মোবাইল ফোনের ব্যবহার নিষিদ্ধ। মাস কমিউনিকেশন পড়েও যে তিনি পছন্দ মতো চাকরি করবেন, অনুমতি মেলেনি তারও। সাক্ষী জানাচ্ছেন, বাড়ির বাইরে চাকরি করায় আপত্তি দেখে তিনি এমনকি এও বলেছিলেন, তাঁকে বিধায়ক বাবার অফিসে কাজ করতে দেওয়া হোক! সারাদিন কত লোকজন আসেন, তাঁদের অভাবঅভিযোগের কথা শোনার সুযোগ দেওয়া হোক! সাক্ষীর ভাই ভিকি সে কাজগুলো করেন। কিন্তু সাক্ষীকে সে অধিকার দেওয়া হয়নি। সাক্ষীর আক্ষেপ, বাবা তাঁকে কখনও গুরুত্বই দেননি। ভাই যা কিছু স্বাধীনতা পেয়েছে, তিনি তার কিছুই পাননি শুধু মেয়ে বলেই। সাক্ষী চেষ্টা করেছিলেন বাবাকে বোঝাতে। বলেছিলেন, ‘‘শুধু মেয়েদের দ্বারাই পরিবারের অসম্মান হয় না, ছেলেদের থেকেও হয়!’‌’


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment