কলকাতা 

কলকাতার ছাত্র-ছাত্রীদের সবুজ সাথীর পরিবর্তে রেনকোট-শীতবস্ত্র দেওয়ার ভাবনা সরকারের ; মূল্যবোধের শিক্ষা আজকের দিনে অপরিহার্য বললেন মুখ্যমন্ত্রী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : কলকাতা শহর এলাকার ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বিশেষ কিছু উপহার দেওয়ার চিন্তাভাবনা করছে রাজ্য সরকার । গ্রামের ছেলেমেয়েরা সবুজ সাথী প্রকল্পে সাইকেল পেয়ে থাকে । কিন্ত শহরে বিশেষ করে কলকাতা শহরে সাইকেল চালানোর সুযোগ খুব কম । তাই শহরের স্কুল পড়ুয়াদের জন্য অন্য কিছু দেওয়ার কথা ভাবছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

বৃহস্পতিবার বেলতলা গার্লস হাইস্কুলের শতবর্ষের অনুষ্ঠান উপলক্ষে নজরুল মঞ্চের এক সবায় এই আশ্বাস দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘‘গ্রামের ছেলেমেয়েরা সবুজ সাথী প্রকল্পে সাইকেল পেয়েছে। কারণ, তাদের অনেক দূরের স্কুলে যেতে হয়। কলকাতায় সবুজ সাথী প্রকল্পেয় সুবিধা দেওয়া যায় না। কারণ, কলকাতার রাস্তায় সাইকেল চলে না। শহরে সবুজ সাথীর বদলে কিছু করা যায় কি না, আমরা ভাবব।’’ মুখ্যমন্ত্রী জানান, দার্জিলিঙের পাহাড়ি রাস্তায় সাইকেল চালানোর সুযোগ কম। তাই সেখানে ছেলেমেয়েদের জন্য রেনকোট বা ব্যাগ দেওয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, কলকাতার ছেলেমেয়েদের জন্য আলাদা করে রেনকোট , শীতবস্ত্র ও কোট-প্যান্ট দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের ।মুখ্যমন্ত্রী দিন জানান, স্কুলে কম্পিউটার ক্লাস, স্মার্ট ক্লাসের সঙ্গে সঙ্গে মূল্যবোধের ক্লাসও নেওয়া দরকার। আজকের দিনের পরিস্থিতি বিচার করে পড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে মূল্যবোধ, সততা, স্বচ্ছতার উপরেও গুরুত্ব দেওয়া জরুরি।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘ছোটো বেলায় শিক্ষকেরা পড়াতেন, লোভে পাপ পাপে মৃত্যু। এগুলো আমরা ভুলিনি। একটা জমি চাষ করলে জমি উর্বর হয়। মাথাটাও তেমনই। ভাল জিনিস যদি চাষ করা যায়, ব্রেনটা সুন্দর হয়। শুধু হিংসা আর নেগেটিভ চিন্তা নয়।’’

শতবর্ষের বেলতলা স্কুল যদি কলেজ তৈরির পরিকল্পনা করে, তার জন্য সরকার জমি দেবে বলে আশ্বাস দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘আমি চাই, বেলতলা স্কুল একটা কলেজও তৈরি করুক। তবে কলকাতায় জমির সমস্যা। রাজারহাটে জমি দেওয়া যেতে পারে।’’ মুখ্যমন্ত্রী জানান, স্কুলের সামগ্রিক পরিকাঠামো উন্নয়নে এক কোটি ২৫ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে। বাংলার সঙ্গে স্কুলে ইংরেজি মাধ্যম চালু করার কথাও বলেন মমতা।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment