কলকাতা 

বিধায়ক-মন্ত্রীদের ভাতা বাড়ানো হল, সরকারি কর্মচারীদের পে কমিশন কোথায় ? ক্ষোভে ফুঁসছে রাজ্য সরকারের কর্মীরা

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক :  কাটমানি ইস্যুতে বেকায়দায় পড়ার পর এবার বিধায়ক-মন্ত্রীদের মাইনে বাড়ানো হল নজীরবিহীনভাবে । মুখ্যমন্ত্রী প্রায়ই বলেন , রাজ্যের আর্থিক অবস্থা শোচনীয় । কিন্ত সদ্য বিধানসভায় বিধায়কদের বেতন ও মন্ত্রীদের বেতন প্রত্যাশিতভাবে বৃদ্ধি করা হয়েছে । এখন থেকে মুখ্যমন্ত্রীর বেতন হবে ১,১৭০০১ টাকা , ক্যাবিনেট মন্ত্রীদের বেতন হবে ১,১২০০০টাকা , প্রতিমন্ত্রীদের বেতন হবে ১,১১,৯০০টাকা । বিধায়কদের মাসিক বেতন হবে ৮১,৮৭০টাকা ।

শুক্রবার বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করলেন এই ভাতা বৃদ্ধির কথা। মন্ত্রীদের দৈনিক ভাতা ২ হাজার টাকা থেকে বেড়ে হল ৩ হাজার টাকা। আর বিধায়কদের দৈনিক ভাতা ১ হাজার টাকা থেকে বেড়ে হল ২ হাজার টাকা। তবে কংগ্রেস ও বামেরা এই ঘোষণাকে সর্বাংশে স্বাগত জানায়নি। দৈনিক ভাতা দেওয়ার প্রশ্নে মন্ত্রী এবং বিধায়কদের মধ্যে ফারাক থাকার বিরোধিতা করেছেন কংগ্রেসের মনোজ চক্রবর্তী। আর সিপিএমের সুজন চক্রবর্তীর দাবি, প্রাক্তন বিধায়কদের অনেকেই অর্থকষ্টের মধ্যে রয়েছেন, তাঁদের বিষয়টি আগে ভাবা জরুরি ছিল।

এত দিন পর্যন্ত যে কাঠামো চালু ছিল, তাতে পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যেক মন্ত্রী (মুখ্যমন্ত্রী, পূর্ণমন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী) দিনে ২ হাজার টাকা করে ভাতা পেতেন। অর্থাৎ মাসে পেতেন ৬০ হাজার টাকা। এ বার দৈনিক ভাতার পরিমাণ বাড়িয়ে ৩ হাজার টাকা করা হল। ফলে দৈনিক ভাতা বাবদ মাসে প্রত্যের মন্ত্রীই ৯০ হাজার টাকা করে পাবেন। যদিও মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোনও ভাতা নেন না।

যে বিধায়করা মন্ত্রী নন, তাঁদের দৈনিক ভাতার পরিমাণ এত দিন ছিল ১ হাজার টাকা। অর্থাৎ সাধারণ বিধায়করা দৈনিক ভাতা বাবদ মাসে পেতেন ৩০ হাজার টাকা। এ বার থেকে ওই খাতে তাঁরা পাবেন ৬০ হাজার টাকা করে।

বিধায়কদের ক্ষেত্রে অবশ্য এই দৈনিক ভাতা পাওয়ার প্রশ্নে একটি শর্ত রাখা হয়েছে। তা হল, বিধানসভার বিভিন্ন স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠকে বিধায়কদের উপস্থিতি। প্রত্যেক মাসে দু’বার অর্থাৎ ১৫ দিনে এক বার স্ট্যান্ডিং কমিটিগুলি বৈঠকে বসে।ওই বৈঠকগুলিতে উপস্থিত না হলে দৈনিক ভাতায় কোপ পড়বে বলে জানানো হয়েছে।

এদিকে সরকারি কর্মচারীদের বেতন বৃদ্ধি না করে যেভাবে বিধায়ক ও মন্ত্রীদের বেতন বাড়ানো হল ; তাতে ক্ষুদ্ধ সরকারি কর্মচারীরা । তারা অবিলম্বে পে কমিশন ও বকোয়া ডিএ দেওয়ার দাবি তুলেছে ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment