কলকাতা 

তপশিলী জাতি / উপজাতি সম্প্রদায়ের মন বুঝতে আজ দলীয় ও বাম-কংগ্রেস বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠক করবেন মমতা

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : লোকসভা ভোটে একমাত্র মুসলিমদের আস্থা ছাড়া আর কোনো সম্প্রদায়ের আস্থা তেমনভাবে পায়নি তৃণমূল কংগ্রেস । তাই আজ বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের তপশিলী জাতি /উপজাতি সম্প্রদায়ের বিধায়কদের সঙ্গে তো বটেই এমনকি বিরোধী দলের বাম-কংগ্রেস বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। জানার চেষ্টা করবেন আসল তপশিলী জাতি / উপজাতিদের সমস্যাটা কোথায় , সমাধানের উপায় কী । তবে তৃণমূলের সরকার আসার পরে সব দলের তফসিলি বিধায়কদের নিয়ে এমন বৈঠক এই প্রথম। সরকারি বৈঠকে বিরোধী দলের জনপ্রতিনিধিদের ডাক পাওয়াও এই জমানায় দীর্ঘ দিন পরে ঘটছে।

বিরোধীরা অবশ্য মনে করছে, লোকসভা ভোটের ফলাফল দেখেই এমন উদ্যোগের কথা মাথায় এসেছে সরকারের। লোকসভা ভোটে এ বার তফসিলি এলাকায় তৃণমূলের ভরাডুবি হয়েছে এবং ততটাই ভাল ফল করেছে বিজেপি। দক্ষিণবঙ্গে মতুয়া এলাকা, রাঢ়বঙ্গ ও জঙ্গলমহলের জনজাতি সম্প্রদায় বা উত্তরবঙ্গের রাজবংশী— নানা অংশের মানুষের সমর্থন গেরুয়া শিবিরের দিকে গিয়েছে। তার পরেই তফসিলি কেন্দ্রগুলির মানুষের মন বুঝতে মুখ্যমন্ত্রী নতুন করে উদ্যোগী হয়েছেন বলে বিরোধীদের অভিমত।

রাজ্যের মোট ২৯৪টি বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে ৬৮টি তফসিলি জাতি এবং ১৬টি তফসিলি উপজাতির জন্য সংরক্ষিত। তিন বছর আগে বিধানসভা ভোটেও ওই কেন্দ্রগুলির সিংহভাগ দখলে রেখেছিল তৃণমূল। গত বছর পঞ্চায়েত ভোটে পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রামের জনজাতি এলাকায় শাসক দলের প্রথম ধাক্কা খাওয়া শুরু হয়। লোকসভা ভোটে এ বার উত্তরবঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকা, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, নদিয়া, উত্তর ২৪ পরগনার অনেকাংশে বিজেপি এগিয়ে গিয়েছে। আবার সন্দেশখালিতে সংঘর্যের ঘটনার পরে এলাকায় ঘুরে গিয়েছে জাতীয় তফসিলি জাতি ও উপজাতি কমিশন। এই প্রেক্ষিতেই এমন বৈঠককে তাৎপর্যপূর্ণ ধরা হচ্ছে।

শাসক শিবিরের এক বিধায়ক অবশ্য বলছেন, ‘‘সারা দেশেই তফসিলি মানুষের অধিকার বিপন্ন। এমতাবস্থায় রাজ্যে ওই অংশের মানুষের সমস্যা জানতে চায় সরকার।’’

এদিকে বিরোধীরা বলছে , ঠেলার নাম বাবাজি । কারণ এতদিন ধরে ক্ষমতায় থাকার পরও কোনো সময় তপশিলী জাতি / উপজাতি সম্প্রদায়ের বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠক করা হয়নি । এমনকি দলীয় বিধায়কদের সঙ্গে না । এবার লোকসভা ভোটে তপশিলী সম্প্রদায়ের ভোট বিজেপির দিকে চলে যাওয়ার পরেই মমতার এই উদ্যোগ ।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment