দেশ 

কংগ্রেস সভাপতি পদে থাকবেন না রাহুল ; পরবর্তী সভাপতি দৌড়ে এগিয়ে সুশীল শিন্ডে , অশোক গেহলট , গোলাম নবী আজাদ , মল্লিকার্জুন খাড়গে ; পাল্লা ভারি সুশীলের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : রাহুল গান্ধী কংগ্রেস সভাপতি পদে থাকবেন না । সোমবার দেশের কংগ্রেস রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীদের একযোগে অনুরোধের পরেই অনড় অবস্থানে রয়েছে রাহুল । এদিন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরেন্দ্র সিংহ, রাজস্থানের অশোক গেহলট, মধ্যপ্রদেশের কমল নাথ, ছত্তীসগঢ়ের ভূপেশ বাঘেল ও পুদুচেরীর নারায়ণস্বামী একসঙ্গে রাহুলের বাড়িতে গিয়ে দেখা করেন। দুপুর সাড়ে তিনটেয় সেখানে যাওয়ার আগেই গেহলট টুইট করে বলেন, ‘‘ভোটে হারের দায় আমরা স্বীকার করছি। আমরা রাহুল গাঁধীর সঙ্গে আছি। সে কারণেই কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রীরা তাঁর বাড়িতে যাচ্ছি।’’ দুপুর গড়িয়ে বিকেল পর্যন্ত প্রায় দু’ঘণ্টারও বেশি মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন রাহুল। বেরিয়ে এসে গেহলট বলেন, ‘‘ভোটে হার-জিত থাকেই। আমরা আজ সকলে খোলা মনে নিজেদের ও দলের কর্মীদের মনের কথা রাহুল গাঁধীকে জানিয়েছি। তিনি মন দিয়ে শুনেছেন। আশা করি, আমাদের কথা ভেবে তিনি সময় মতো উপযুক্ত সিদ্ধান্ত নেবেন।’’ কিন্তু তার পরেও রাহুল সংসদ ভবন চত্বরে স্পষ্ট বলেন, ‘‘আমি তো আমার অবস্থান একাধিক বার জানিয়ে দিয়েছি। সেখান থেকে কোনও বদল হবে না।’’

তবে কংগ্রেস সূত্র বলছে, প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরা এখন বিদেশে। রাহুলও ফের বিদেশে যেতে পারেন। ফিরে আসার পরেই কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডেকে নতুন সভাপতি নির্বাচনের সিদ্ধান্ত হতে পারে। পরবর্তী সভাপতি পদের দৌড়ে রয়েছেন অশোক গেহলট , গোলাম নবী আজাদ , মল্লিকার্জুন খাড়গে প্রমুখ । তবে রাহুল গান্ধী হয়তো সভাপতি বেছে দিতে পারেন বলেন জানা গেছে । সেটা যদি হয় তাহলে মহারাষ্ট্রে সুশীল শিন্ডে দলিত নেতা হিসাবে যোগ্য একই সঙ্গে রাহুল-সোনিয়া ও প্রিয়াঙ্কার পচ্ছন্দের মানুষ ।

কংগ্রেসের এক নেতার কথায়, ৭৭ বছর বয়সি দলিত নেতা শিন্ডেকে যদি বেছে নেওয়া হয়, সেটি হবে গাঁধী পরিবারের প্রতি তাঁর আনুগত্যের জন্যই। শিন্ডে নিজের উচ্চাকাঙ্ক্ষা কখনও প্রকাশ করেননি। এক বার মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী না হতে পারায় রাজ্যপাল করে দেওয়া হয়েছিল তাঁকে। তাতেও টুঁ শব্দ করেননি। শরদ পওয়ারের সঙ্গেও তাঁর ঘনিষ্ঠতা রয়েছে। পওয়ারের এনসিপির সঙ্গে কংগ্রেসের মিশে যাওয়ার জল্পনা অনেক দিনের। পওয়ার নিজের কন্যা সুপ্রিয়া সুলেকে মহারাষ্ট্র কংগ্রেসের সভানেত্রী ও সে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর মুখ হিসেবে তুলে ধরতে চান। সে সব মিলিয়েই এখন শিন্ডের নাম সভাপতির দৌড়ে এগিয়ে।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment