কলকাতা 

ডাইনিং হল তৈরিতে মমতা সরকারের নির্দেশিকায় কোনো পক্ষপাতিত্ব নেই : আমজাদ আলী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : সম্প্রতি সংখ্যালঘু উন্নয়ন দফতরের কোচবিহার জেলা সংখ্যালঘু উন্নয়ন আধিকারিকের এক সাকুর্লারকে ঘিরে বির্তক তৈরি হয়েছে । বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ থেকে শুরু করে বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান পর্যন্ত এই সাকুর্লারকে এক পেশে ও পক্ষপাতিত্বমূলক বলে মন্তব্য করেছেন । এমনকি দিলীপ ঘোষ বলেছেন , এটা বিভেদ তৈরি করার চেষ্টা মাত্র । সংখ্যালঘু শিক্ষার্থীদের জন্য ডাইনিং হল হবে ,আর সংখ্যাগুরুদের জন্য হবে না এটা চলতে পারে না ।

কিন্ত ঘটনা হল , সংখ্যালঘু উন্নয়ন দফতরের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ যাতে কেন্দ্রে ফেরত না যায় তার জন্যই সরকার সিদ্ধান্ত নেয় যেসব বিদ্যালয়ে ৭০ শতাংশ সংখ্যালঘু সমাজের ছেলেমেয়ে পড়াশোনা করে সেইসব বিদ্যালয়ে ডাইনিং হল করার জন্য টাকা দেওয়া হবে । আর জেলা হিসাবে কোচবিহার এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় । এ প্রসঙ্গে আমরা কথা বলেছিলাম বিশিষ্ট আইনজীবী ও কংগ্রেস নেতা প্রাক্তন সাংসদ সর্দার আমজাদ আলীর সঙ্গে । তিনি বলেন , প্রথমেই বলা যেতে পারে সংখ্যালঘু উন্নয়নের জন্য মনমোহন সিং সরকার যে বিশেষ অর্থ বরাদ্দের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সেই সিদ্ধান্ত এখনও পর্যন্ত বিজেপি সরকার বাতিল করেনি । সুতরাং সংখ্যালঘু উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ অর্থ যদি সংখ্যালঘু আধিক্য আছে এমন স্কুলগুলির জন্য বরাদ্দ করা হয় তাতে কোনো ভুল নেই । আমি এ বিষয়ে মমতা সরকারের সিদ্ধান্তকে সঠিক বলে মনে করি । কারণ যদি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ওই অর্থ খরচ না হয় , তাহলে তা ফেরত চলে যাবে । ফেরত যাওয়ার চেয়ে সেই টাকা যদি মাদ্রাসার বাইরে কোনো স্কুলে অবশ্যই সংখ্যালঘু ছেলেমেয়ে বেশি পড়াশোনা করছে এমন বিদ্যালয়ের জন্য বরাদ্দ করলে তা ভাল হবে । এটা শুধুমাত্র সংখ্যালঘুদের জন্যই নয় , যদি তপশিলী জাতি/ উপজাতিদের জন্য আলাদা করে বরাদ্দ কৃত অর্থ খরচ করতে হয় সেক্ষেত্রে দেখতে হবে সেখানে তপশিলী জাতি / উপজাতির সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব কেমন।

বিশিষ্ট আইনজীবী সর্দার আমজাদ আলী আরও বলেন ,আমাদের দলের কিছু নেতা এবং বামেদের মধ্যেও কিছু নেতা আছেন যার অন্ধভাবে মমতার বিরোধিতা করে থাকেন । এটা ঠিক নয়। কারণ আগে জানতে হবে কেন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তা না জেনেই যেভাবে মন্তব্যের ঝড় বইতে শুরু হল তাতে আমাদের চিন্তাভাবনার দৈন্যতা প্রকট হয়ে ধরা দিল। আর বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের কাছে তিনি প্রশ্ন করেন , সংখ্যালঘু উন্নয়নের বরাদ্দকৃত অর্থের সিংহভাগ কেন্দ্রের । তাহলে কেন্দ্রের গাইড লাইনে তো পরিস্কার বলা হয়েছে এই টাকা শুধু সংখ্যালঘু উন্নয়নের জন্যই বরাদ্দ । তাহলে মমতা যদি উদ্বৃত্ত অর্থ  ৭০ শতাংশ সংখ্যালঘু ছেলেমেয়ে পড়ছে এমন বিদ্যালয়ে ডাইনিং হল করার জন্য খরচ করার নির্দেশ দেয় তা কী কেন্দ্রের মোদী সরকারের গাইড লাইনের বিরোধী ? এমন তো হতেই পারে না । ডাইনিং হল তৈরি হলে সেখানে তো সবাই খাওয়া-দাওয়া করবে । তাহলে দিলীপবাবুর অহেতুক মেরুকরণের চেষ্টা না করলেই বাংলার ভাল হয় ।

আর বাম-কংগ্রেস নেতাদের কাছে আমজাদ সাহেবের পরামর্শ আপনারা সব বিষয়ে মমতার সমালোচনা করতে গিয়ে বিজেপির সুবিধা করে দিচ্ছেন নাকি ? বিষয়ে গভীরে না ঢুকে গলায় চড়িয়ে প্রেস কনফারেন্স করলেই বড় নেতা হওয়া যায় না বলে আমজাদ সাহেব দাবি করেন ।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment