দেশ 

মুসলিম সম্প্রদায়ের আবেদন মেনে যোগী প্রশাসনের সিদ্ধান্ত খোলামেলা পোশাক পড়ে ঢোকা যাবে না লখনউ-র ইমামবাড়ায়

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অশ্লীল পোশাক পড়ে ঢোকা যাবে না লখনউ-র ইমামবাড়াতে  এই নির্দেশিকা জারি করেছে এলাকার জেলাশাসক । বিজ্ঞপ্তিতে নির্দিষ্ট করে বলা হয়েছে, মিনি স্কার্ট বা খোলামেলা টপ পরে ‘বড়া ইমামবড়া’ বা ‘ছোটা ইমামবড়া’ মসজিদে প্রবেশ করা যাবে না। কট্টরপন্থী কোনও ধর্মীয় সংগঠন নয়, খোদ জেলা প্রশাসনের এমন ফতোয়ায় দানা বেঁধেছে বিতর্ক।

সম্প্রতি শিয়া সম্প্রদায়ের মৌলবিদের সঙ্গে একটি বৈঠক হয় জেলা প্রশাসনের। ওই বৈঠকের পরেই জেলাশাসক কুশলরাজ শর্মা বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়ে দেন, ‘ঐতিহাসিক এই ভবনে শর্ট স্কার্ট বা শরীর দেখা যায়, এমন কোনও পোশাক পরে ভিতরে প্রবেশ করা যাবে না। শরীর ঢাকা থাকবে, এমন পোশাক পরেই ভিতরে ঢুকতে হবে দর্শনার্থীদের।’

ইতিমধ্যেই দুই ইমামবড়া মসজিদকে সংরক্ষিত স্থান হিসেবে ঘোষণা করেছে  এএসআই বা ভারতীয় পুরাতাত্ত্বিক সর্বেক্ষণ। জেলা প্রাশাসনের সঙ্গে ওই বৈঠকে শিয়া সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের পাশাপাশি এএসআই আধিকারিকরাও ছিলেন। জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, তাঁদের তরফেও এর কোনও বিরোধিতা করা হয়নি।

স্থানীয় সূত্রে খবর, লখনউয়ের শিয়া মৌলবি, ঐতিহাসিক ও সুশিল সমাজের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং  এ বিষয়ে একটি চিঠি লেখেন। ওই চিঠিতে একটি পোশাক বিধি চালুর দাবি করা হয়। তাঁদের বক্তব্য ছিল, অমৃতসরে স্বর্ণমন্দিরে ঢোকার সময় যেমন মাথা ঢেকে যেতে হয়, তেমনই এই ইমামবড়া মসজিদে প্রবেশের ক্ষেত্রেও সেই রকম পোশাক বিধি কার্যকরী করা হোক। সেই চিঠির ভিত্তিতেই এই নির্দেশ বলে জেলা প্রশাসন সূত্রের খবর।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment