কলকাতা 

পিআরটি স্কেলের দাবিতে UUPTWA-র ডাকে আগামী কাল মহামিছিল করবে প্রাইমারি শিক্ষকরা

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : আগামী কাল সকাল থেকে সমগ্র কলকাতা মিছিলে মিছিলে ছেয়ে যাবে । মানুষ কারিগররা আগামী কাল তাদের ন্যায্য অধিকারের দাবিতে পথে নামবেন । উস্তি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনে ডাকে কাল মহামিছিল হবে । শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় সংগঠনের নেত্রী পৃথা বিশ্বাসকে ফোন করে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছিলেন । কিন্ত শিক্ষামন্ত্রীর পক্ষ থেকে শেষ পর্যন্ত কোনো যোগাযোগ করা হয়নি । তাই মহামিছিল কাল হবেই । সমগ্র কলকাতা শিক্ষকদের মিছিল কল্লোলিত হয়ে উঠবে ।

প্রাথমিক শিক্ষকদের উচ্চ-মাধ্যমিক স্কেলে বেতন দেওয়ার দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে উস্তি ইউনাইটেড প্রাইমারী টির্চাস অ্যাসেসিয়েশন । আগামী কাল সোমবার ২৪ জুন পিআরটি স্কেলের দাবিতে আবারও কলকাতায় এই  আরাজনৈতিক শিক্ষক সংগঠনটি মহামিছিল করবে । যদিও শুক্রবার কয়েকটি সংবাদ পত্র ও চ্যানেলে খবর বেরিয়েছে রাজ্য সামান্য বেতন বাড়িয়েছে । অর্থাৎ প্রাথমিক শিক্ষকদের দাবি মেনে নিয়েছে । আগামীতে পে কমিশন চালু হওয়ার সেই দাবির সবটাই মান্যতা পাবে কিছু সংবাদ খবর করেছে । কিন্ত এই খবর বের হওয়ার পরও এই অরাজনৈতিক শিক্ষক সংগঠনটি মহা-মিছিলের ডাক প্রত্যাহার করেনি । বরং সোস্যাল মিডিয়ায় এই খবরের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ ব্যক্ত করা হয়েছে ।

জানা গেছে , অরাজনৈতিক শিক্ষক সংগঠনের মহা-মিছিলের ডাকে খানিকটা অস্বস্তিতে সরকার । তাই এবার খোদ শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জী ফোন করলেন সংগঠনের সম্পাদিকা পৃথা বিশ্বাস কে! সংগঠনের সম্পাদিকা এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জী তাকে ফোন করেন এবং আগামী ২৪ তারিখের মহা মিছিল বন্ধ করতে অনুরোধ করেন। তিনি পৃথা বিশ্বাস কে জানান, প্রাথমিক শিক্ষকদের পিআরটি স্কেলের দাবি মেনে নেওয়া হয়েছে তাহলে আবার আন্দোলন কেন? জবাবে সংগঠনের পক্ষ থেকে পৃথা শিক্ষামন্ত্রীকে জানিয়ে দেন এক স্কেল বেতন বৃদ্ধি বিষয়টা পরিষ্কার নয় তাঁদের কাছে। কাজেই কেন্দ্রীয় হারে যোগ্যতা অনুযায়ী বেতন না পেলে তাঁরা অনড় থাকবেন দাবীতে। শিক্ষামন্ত্রী তখন বলেন তিনি বসতে চান সংগঠনের প্রতিনিধিদের সাথে, সেখানে আলোচনা করবেন আর কি করলে তাঁদের দাবী পূরন হবে। কিন্তু শর্ত ২৪শে জুনের মহামিছিল বন্ধ করতে হবে!

এরপর UUPTWA-র পক্ষ থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী-র প্রস্তাবের প্রতি সম্মান রেখে তাঁরা বসতে রাজি কিন্তু আলোচনা করতে হবে আগামীকাল দুপুর ২টোর মধ্যে। যদি আলোচনার টেবিলে প্রাথমিক শিক্ষকদের দাবী পূরণ হয় তাহলে মিছিল হবে না। কিন্তু যদি শিক্ষামন্ত্রী আলোচনায় না বসেন এবং দাবী পূরন না করেন তাহলে মহামিছিল তো হবেই ভবিষ্যতে কর্মবিরতিতেও যাবেন তাঁরা। এখন দেখার শিক্ষামন্ত্রী কি সিদ্ধান্ত নেন।

এদিকে  আজ সংগঠনের সম্পাদিকা পৃথা বিশ্বাস সংবাদ মাধ্যমকে জানান “আলোচনায় বসতে চাওয়া আসলে আইওয়াস, শিক্ষামন্ত্রীর মূল ইচ্ছা ছিল প্রাথমিক শিক্ষকদের মহামিছিল বন্ধ করা। কারন শিক্ষামন্ত্রী মিছিল বন্ধ করার আবেদন করায় আমরা তাঁর সম্মান রক্ষার্থে মিছিলের আগেরদিন অর্থাৎ আজ দুপুর ২টোর মধ্যে আলোচনায় বসার প্রস্তাব দিয়েছিলাম। কিন্তু পার্থবাবুর দিক থেকে আর কোন রেসপন্স আসেনি। আর মিছিল বন্ধ করে শিক্ষামন্ত্রীর সময়ের জন্যে অপেক্ষা করা আর সম্ভব নয়। এ আমাদের ভাত কাপড়ের লড়াই। আমাদের হক আমরা ছিনিয়ে আনবই, আজ নয় কাল। দরকার হয় কর্মবিরতিতে যাব। কিন্তু দিনের পর দিন এই অন্যায় মানা সম্ভব নয়।”

 

 

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment