কলকাতা 

এনআরএসে জুনিয়র ডাক্তারের উপর হামলার প্রতিবাদে রাজ্যের সব মেডিকেল কলেজে বিক্ষোভ ; কাল বন্ধ থাকবে সরকারি –বেসরকারি হাসপাতালের সব আউটডোর পরিষেবা ; দফায় দফায় বৈঠকের পরেও মেলেনি সমাধান সূত্র

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : রোগী মৃত্যুর ঘটনার জেরে জুনিয়র চিকিৎসক পরিবহ মুখোপাধ্যায়ের উপর হামলার পরিপ্রেক্ষিতে জুনিয়র ডাক্তার আন্দোলনের  পাশে এসে দাঁড়ালেন  সিনিয়র ডাক্তাররা। রাজ্যের ‘ডক্টরস ফোরম’-এর নেতৃত্বে সাংবাদিক সম্মেলন করে মঙ্গলবার বিকেলে জানান হয়, আগামিকাল ১২ জুন রাজ্যের সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের আউটডোর বন্ধ থাকবে। তবে এমার্জেন্সি বিভাগ খোলা রাখার ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সকাল নটা থেকে রাজ্যের সমস্ত বেসরকারি ও সরকারি হাসপাতালের আউটডোর বন্ধ থাকবে বলে জানান হয়েছে। তবে আউটডোর বন্ধ থাকলেও জরুরি বিভাগ খোলা থাকবে বলে সিনিয়র চিকিৎসকদের সংগঠন ডক্টরস ফোরাম জানিয়েছে । তবু চিকিৎসকদের আন্দোলনের জেরে  আগামিকাল হয়রানির মুখে পড়তে হতে পারে বহু রোগীকে, এমনটাই আশঙ্কা করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, সোমবার (১০ জুন) রাতে নীলরতন সরকার হাসপাতলে ভর্তি করা হয় বছর আশির মহম্মদ সাহিদকে। তাঁর পরিবারের অভিযোগ, এদিন বিকেলের পর থেকে রোগীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। কিন্তু চিকিৎসকদের ডাকাডাকি করলেও তাঁরা সময় মতো আসেননি। পরিবারের কথায়, চিকিৎসকদের গাফিলতিতেই মৃত্যু হয় মহম্মদ সাহিদের। এরপরই ট্রাকে করে হাসপাতাল চত্বরে লোক ঢুকিয়ে জুনিয়র চিকিৎসকদের বেধরক মারধরের অভিযোগ উঠেছে রোগীর পরিবারের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয় ডাঃ পরিবহ মুখোপাধ্যায়ের। এরপরই নিরাপত্তার অভাবে এবং আক্রমণের প্রতিবাদে ক্ষোভে ফুঁসতে থাকা ডাক্তাররা  কর্মবিরতির ডাক দেন। মূহুর্তে এই খবর ছড়িয়ে পরে রাজ্যের চিকিৎসক মহলে। এরপরই এনআরএসের প্রতিবাদী ডাক্তারদের প্রতি সংহতি জানিয়ে কর্মবিরতিতে সামিল হন রাজ্যের সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবারই হাসপাতালে আসেন রাজ্যের স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। এদিন সুপার দ্বৈপায়ন বিশ্বাসের সঙ্গে প্রায় আধ ঘন্টা বৈঠক করেন করেন মন্ত্রী। জানা যাচ্ছে, ডাঃ পরিবহ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখাও করেছেন চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। তবে চন্দ্রিমা দেবী হাসপাতালে এলেও সরকারি স্তরে কোনো বিবৃতি বা প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment