কলকাতা 

‘‘দল আমাকে বিধানসভায় লড়তে বলেছিল, লড়েছি। লোকসভায় লড়তে বলেছে লড়েছি। যদি দল আর কোনও দায়িত্ব দেয়, তখন সেই কাজ করব, আপাতত সংসদে যাচ্ছি’’ : দিলীপ ঘোষ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : মঙ্গলবার বিধানসভার সদস্য পদ থেকে ইস্তাফা দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ । তিনি বিধানসভায় এসে ইস্তাফা পত্র জমা দেন । তারপরেই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন । সাংবাদিকরা তাঁকে প্রশ্ন করেন ২০২১ সালে বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি ক্ষমতায় এলে মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে কি বসবেন দিলীপ ঘোষ? জবাবে বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন, ‘‘দল আমাকে বিধানসভায় লড়তে বলেছিল, লড়েছি। লোকসভায় লড়তে বলেছে লড়েছি। যদি দল আর কোনও দায়িত্ব দেয়, তখন সেই কাজ করব, আপাতত সংসদে যাচ্ছি’’। দিলীপ আরও বলেন, ‘‘বাংলার ভবিতব্য বিজেপির হাতে’’।

লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে এবার মেদিনীপুরে জয়ী হয়েছেন দিলীপ। সাংসদ হওয়ার জন্যই খড়গপুর সদরের বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। এবার মেদিনীপুরে লোকসভা নির্বাচনে দিলীপের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন তৃণমূলের মানস ভুঁইয়া। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত মানসকে হারিয়ে জয়ের হাসি হাসেন দিলীপ। বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‘তিন বছর বিধানসভায় ছিলাম। সকলের সঙ্গে পারিবারিক সম্পর্ক হয়ে গিয়েছিল। এটা একটা যাত্রা, বিধানসভা থেকে সংসদে যাওয়া’’।

প্রসঙ্গত, লোকসভা নির্বাচনে এবার বাংলায় উত্থান ঘটেছে বিজেপির। ৪২টি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে ১৮টিতেই জয় ছিনিয়ে নিয়েছে বিজেপি। অমিত শাহর ২৩টি আসনে জেতার টার্গেট পূরণ না হলেও, যেভাবে শাসকদলের কান ঘেঁষে রয়েছে গেরুয়াবাহিনী, তাতে বাংলায় এবার অভূতপূর্ব সাফল্য পেয়েছে বঙ্গ বিজেপি। উনিশের লোকসভার লড়াইকে কেউ কেউ ‘সেমিফাইনাল’ বলেও বর্ণনা করেছেন। সেমিফাইনাল ম্যাচে বঙ্গ বিজেপির এমন ‘চমকপ্রদ’ পারফরম্যান্সের পর ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের ফাইনাল ম্যাচ জিততে মরিয়া দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়রা। ইতিমধ্যেই ২০২১ সালে বাংলায় বঙ্গ বিজেপিকে ১৮০টি আসনে জেতার টার্গেট বেঁধে দিয়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।

 

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment