জেলা 

পুরাতন মালদা পুরসভার ১৪ কাউন্সিলার যোগ দিচ্ছে বিজেপিতে ; ৭২ ঘন্টার মধ্যেই পুরসভা বিজেপি-র দখলে যাবে দাবি বিজেপি নেতৃত্বের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ভাটপাড়া , নৈহাটি ,কাঁচরাপাড়া ,হালিশহরের পর এবার নাকি তৃণমূল পরিচালিত পুরাতন মালদা পুরসভাও দখল করতে চলেছে বিজেপি । বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে এই পুরসভার দখল নেবে বিজেপি। এই পুরসভা এলাকায় মানুষের যা পরিষেবা পাওয়া দরকার তা পাচ্ছে না।

বিরোধীদের অভিযোগ, খোদ পুরসভার ক্ষমতায় থেকে চেয়ারম্যান নিজের স্বার্থসিদ্ধ করছে৷ মানুষের কোন কাজ করছেন না। তাই নামেই পুরসভা, পুরসভার ছিটেফোঁটা উন্নয়ন নেই এখানে। ফলে পিছিয়ে পড়ছে পুরাতন মালদহ। মানুষ চাইছে পালাবদল হোক পুরসভার।

কুড়িটি আসন বিশিষ্ট পুরাতন মালদহ পুরসভার মধ্যে বর্তমানে রয়েছেন তৃণমূলের ১৯ জন। এদের মধ্যে ১৪ জন কাউন্সিলরই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেবে বলে দাবি করেছে বিজেপি। পুরসভা নির্বাচনে ১৬টি আসন তৃণমূল দখল করে। পরবর্তী সময়ে বিজেপি থেকে তৃণমূলে যোগ দেয় তিন কাউন্সিলার। স্বাভাবিক ভাবেই শক্তিবৃদ্ধি করে ক্ষমতা দখল করে তৃণমূল কংগ্রেস। পুরসভার চেয়ারম্যান হয় কার্তিক ঘোষ।

বিরোধীদের অভিযোগ, নাম মাত্র পুরসভা এটি। এখানে কোন পরিষেবা পাওয়া যায় না। ফলে যত দিন যাচ্ছে তত পিছিয়ে পরছে এলাকার উন্নয়ন। চেয়ারম্যান ও তার ওয়ার্ড কাউন্সিলদের যে কা কাজ তারা জানে না। তার ফলে এই হাল। খুব শীঘ্রই পালাবদলে সম্ভাবনা রয়েছে।

পুরাতন মালদহর নগর সভাপতি চন্দন দে বলেন, নির্বাচনের আগে থেকেই অনেক তৃণমূল নেতা কর্মীরা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। আমরা চাইলে ৭২ঘন্টার মধ্যে পুরসভা দখল নিতে পারি। মানুষ চাইছে এই পুরসভার উন্নয়ন একমাত্র বিজেপি করতে পারে। বর্তমানে পুনরায় ১৩টি কাউন্সিলার বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ইচ্ছাও প্রকাশ করেছে। সময়ের অপেক্ষা পুরাতন মালদহ পুরসভা বিজেপির দখলে আসতে চলেছে।

তৃণমূলের কাউন্সিলার নৃপেন পাল বলেন, দলীয় গোষ্ঠী কোন্দলের জেরে কেউ থাকতে চাইছে না। কারণে এখানে থেকে মানুষের কাজ করা যায় না। শুধু ফরমান শুনতে হয়। শুভেন্দু অধিকারীকে সমস্তটা জানানো হয়। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। তাই আমরা দল পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিচ্ছি। আমরা সঙ্গে অনেকে সাথ দেবে বলে জানিয়েছে।

যদিও বিজেপির দাবি উড়িয়ে দিচ্ছে তৃণমূল নেতৃত্ব। পুরাতন মালদহ শহর তৃণমূলের সভাপতি বিভূতি ভূষণ ঘোষ বলেন, পুরাতন মালদহ পুরসভা বর্তমানে তৃণমূলের দখলে রয়েছে। তা তৃণমূলের দখলে থাকবে। তবে দলীয় নেতৃত্বের জন্য কিছুটা হলেও ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করে নেন।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment