কলকাতা প্রচ্ছদ 

আমরা জিতব এবং বাংলার মানুষের জন্য কাজ করবঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

শেয়ার করুন
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ আমরা জিতব,কারণ একমাত্র তৃণমূল কংগ্রেসেই এই বাংলার মানুষের পাশে আছে এবং থাকবে। বিগত বছরগুলিতে রাজ্যজুড়ে যে উন্নয়ন হয়েছে তার প্রতিদান মানুষ এই পঞ্চায়েত নির্বাচনে দেবে। রবিবার পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগের দিন এক বেসরকারি টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল দলের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই দাবি করেন। তিনি বলেন,এই পঞ্চায়েতে হান্ডেড পাসেন্ট আসনে বিজয়ী হবে তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূল নেত্রীর এই সাক্ষাৎকারকে কার্যত নির্বাচনী প্রচার বললে ভুল বলা হবে না। তিনি বেশ জোরের সঙ্গে বলেন,আমরাই জিতব। বাংলার প্রতিটি মানুষের সঙ্গে তৃণমূল দলের নিবিড় সর্স্পক আছে।গ্রাম-বাংলায় যে উন্নয়ন হয়েছে তার নিরিখেই আমরা অনেক এগিয়ে রয়েছি।

সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে কিছু সংবাদ-মাধ্যমের সমালোচনা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,৮/১০ টি জায়গায় মাত্র গন্ডগোল হয়েছে। অথচ রাজ্যে ৪৬ হাজার বুথে ভোট হচ্ছে। এর মধ্যে মাত্র ৮/১০ টি জায়গার ঘটনা সামনে এনে কিছু সংবাদ-মাধ্যম হইচই শুরু করেছে। আর বিজেপি দল ডিজিটাল প্রচারের মাধ্যমে বিষয়টি আরও বড় করে প্রচার করে চলেছে। এত অপপ্রচার সত্তে তৃণমূল কংগ্রেসই রাজ্যের সব গ্রাম পঞ্চায়েত,পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলা পরিষদ দখল করতে চলেছে। মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন,বিরোধীদের এত মিথ্যাচার  পঞ্চায়েত ভোটের ফল বের হলেই শেষ হয়ে যাবে। আগামী ১৭মে পঞ্চায়েত ভোটের ফল বের হবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দৃঢ় কন্ঠে বলেছেন,আমরাই জিতবো কারণ বাংলার উন্নয়ন একমাত্র তৃণমূলই করতে পারবে।অন্য কেউ পারবে না। তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করে বলেন,বাংলার মানুষ তৃণমূল কংগ্রেসের পাশে ছিল,আছে এবং আগামী দিনেও থাকবে। পঞ্চায়েতের ভোটের ফল বের হওয়ার পর বিরোধীদের সব অপপ্রচারের ফানুস ফেটে যাবে। ১৭ মে বাংলায় যে সবুজ ঝড় উঠবে তাতেই উড়ে যাবে বিরোধীরা।

ভোটের ঠিক আগের দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে বাংলার তৃণমূল কর্মীরা যে উজ্জীবিত হবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। উল্লেখ্য এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোন নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেননি।তবে কয়েকদিনের ব্যবধানে পর পর তিনটি সাক্ষাৎকার কয়েকটি টেলিভিশনে সম্প্রচার হওয়ার ফলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রচারে না গিয়েও এই সাক্ষাৎকারগুলি দলের কর্মীদের ভোকাল টনিক হিসেবে যে কাজ করবে তা বলাই বাহুল্য মাত্র।


শেয়ার করুন
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment