দেশ 

দল গঠনের পর এই প্রথম সংসদে নেই কেউ ; শোকে খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন জেলবন্দী লালুপ্রসাদ ; কথাও বলছেন না

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিহারের এক সময়ের দোদন্ডপ্রতাপ নেতা লালুপ্রসাদ যাদব এখন নিঃসঙ্গ হয়ে পড়েছেন । লোকসভা ভোটের পর বিজেপি-জেডিইউ জোটের কাছে হারের পর থেকেমধ্যাহ্নভোজই খাচ্ছেন না পশুখাদ্য মামলায় ১৪ বছরের সাজাপ্রাপ্তেএই নেতা । শুধু আহার কমানোই নয়, ভোটের ফল প্রকাশের পর থেকেই কার্যত ‘স্পিকটি নট’ লালু। হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, নিয়মিত খাবার না খাওয়ায় বর্ষীয়ান নেতার ওষুধপত্র দিতেও সমস্যা হচ্ছে।

পশুখাদ্য মামলায় ঝাড়খণ্ডের জেলে বন্দি লালুপ্রসাদ যাদব। তবে অসুস্থতার জন্য বর্তমানে ভর্তি রয়েছেন পটনার রাজেন্দ্র ইনন্সিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস-এ (আরআইএমএস)। হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ২৩ মে ভোটগণনার দিন থেকেই দুপুরের খাবার খাচ্ছেন না বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। শুধু প্রাতরাশ এবং রাতের খাবার খাচ্ছেন। ওই হাসপাতালে লালুর চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক উমেশ প্রসাদ বলেন, ‘‘ওঁকে দিনে তিন বার ইনসুলিন দিতে হয়। নিয়মিত খাবার না খাওয়ায় ইনসুলিন দিতেও সমস্যা হচ্ছে।’’

রাজনীতির ময়দানে তিনি বরাবরই সরব ছিলেন। নিজের দলের পক্ষে মতপ্রকাশ হোক বা বিপক্ষকে খোঁচা দিতে লালুর স্বভাবসিদ্ধ রসবোধ মেশানো কটাক্ষ রাজনৈতিক মহলে অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিল। কিন্তু ২৩ মে ভোটের ফল স্পষ্ট হওয়ার পর থেকেই কার্যত নিঃসঙ্গ। হাসাপাতালের কর্মীদের সূত্রে খবর, দর্শনপ্রার্থী হোক, বা পরিবারের সদস্য— কারও সঙ্গেই বিশেষ কিছু বলতে চাইছেন না। এমনকি, চিকিৎসক- নার্সদের প্রশ্নের উত্তরও দিচ্ছেন দু’-এক কথায়।

এ বার বিহারের ভোট ছিল স্পষ্ট ভাবেই দ্বিমুখী— এনডিএ বনাম ইউপিএ। এক দিকে ছিল নীতীশ কুমারের জেডিইউ এবং বিজেপির জোট। বিপক্ষে কংগ্রেসের নেতৃত্বে রাষ্ট্রীয় লোক দল (আরজেডি), হিন্দুস্থান আওয়াম মোর্চা (হাম), বিকাশশীল ইনসান পার্টি (ভিআইপি) এবং রাষ্ট্রীয় লোকশক্তি পার্টি ( আরএলএসপি)। বিহারের ৪০ আসনের রায়— এনডিএ ৩৯, ইউপিএ-১। অর্থাৎ বিরোধী শিবিরের মাত্র এক জন সাংসদ এবং তিনিও আরএলডি-র নয়। অর্থাৎ আরজেডির আসন শূন্য। দল গঠনের পর এই প্রথম লোকসভায় আরজেডি-র কোনও প্রতিনিধি থাকবে না লোকসভায়।

 

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment