দেশ 

‘‘কোনও বিশেষ জাতি বা বর্ণ আমাকে জেতায়নি। আমাকে জিতিয়েছে দেশের জনতা। দেশের সংখ্যালঘু মানুষের সঙ্গেও ছলনা করা হয়েছে। ওঁদের শিক্ষা দেওয়া হয়নি। কাল্পনিক ভয়ের বাতাবরণ তৈরি করে ওঁদের ভোটব্যাঙ্ক হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে আমি দেশ থেকে ভেদাভেদ তুলে দেব” : নরেন্দ্র মোদী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ‘‘ এক যুগ সন্ধিক্ষণে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব পেয়েছি। ২০২২ সালে দেশের স্বাধীনতার ৭৫ বছর। দেশের সংখ্যালঘু মানুষের সঙ্গেও ছলনা করা হয়েছে। ওঁদের শিক্ষা দেওয়া হয়নি। কাল্পনিক ভয়ের বাতাবরণ তৈরি করে ওঁদের ভোটব্যাঙ্ক হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। আমি দেশ থেকে ভেদাভেদ তুলে দেব। ” শনিবার সংসদের সেন্ট্রাল হলে এনডিএ জোটের সংসদীয় দলের নেতা নির্বাচিত হওয়ার পর ভাষণ দিতে গিয়ে এই মন্তব্য করেন নরেন্দ্র মোদী ।

উল্লেখ্য, শনিবার সংসদের সেন্ট্রাল হলে বিজেপি নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের সমস্ত শরিক দল বৈঠক হয়। এই বৈঠকে এনডিএ জোটের সংসদীয় দলের নেতা নির্বাচিত করা হয় নরেন্দ্র মোদীকে।

এদিনের বৈঠকে হাজির ছিলেন বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা মুরলীমনোহর জোশী এবং লালকৃষ্ণ আডবাণীও। এদিন এই দুই বর্ষীয়ান বিজেপি নেতাকে দেখা গেল নরেন্দ্র মোদীর পাশে বসে থাকতে । এছাড়া এই বৈঠকে হাজির ছিলেন জনতা দল (ইউনাইটেড) নেতা নীতীশকুমার, লোক জনশক্তি পার্টির প্রধান রামবিলাস পাসওয়ান, শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে সহ বিজেপি শরিক দলের শীর্ষনেতারাও।

নরেন্দ্র মোদীকে সংসদীয় দলের নেতা নির্বাচিত করার পর তাঁকে পুষ্পস্তবক দিয়ে স্বাগত জানান লালকৃষ্ণ আদবানী , মুরলীমনোহর যোশী সহ  বিজেপি ও অন্যান্য শরিক দলের নেতৃবৃন্দ। এর পর তাঁকে অভিনন্দন জানিয়ে ভাষণ দেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। একই সঙ্গে তিনি শরিক দলগুলিকেও পাশে থাকার জন্য কৃতজ্ঞতা জানান।

নরেন্দ্র মোদী আরও বলেন ,ভারতমাতার থেকে আর কোনও বড় দেবতা নেই আমাদের। পৃথিবী এখন এমন এক জায়গায় পৌঁছেছে, যেখানে ভারতের পৃথিবীকে অনেক কিছু দেওয়ার আছে। সারা বিশ্বেই ভারত একটা আশার নাম।

তিনি দাবি করেন , গরীব মানুষের টাকা নিয়ে নয়ছয় করা হচ্ছিল। আমি এসে সেই সব কিছু বানচাল করে দিয়েছি। সরাসরি গরীব মানুষের হাতে টাকা তুলে দিয়েছি।  মহাত্মা গাঁধী, দীনদয়াল উপাধ্যায় এবং রামমনোহর লোহিয়া, এঁদের আদর্শে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে দেশকে।

নরেন্দ্র মোদী বলেন ,কোনও বিশেষ জাতি বা বর্ণ আমাকে জেতায়নি। আমাকে জিতিয়েছে দেশের জনতা।  অনেক নতুন সঙ্গী আছেন। মিথ্যাবাদীদের হাত থেকে আপনাদের সচেতন করা আমার দায়িত্ব। অহঙ্কার সরিয়ে রেখে কাজ করতে হবে। কাউকে দোষ দিয়ে কোনও লাভ নেই। নতুন ও পুরনো, সব সঙ্গীদের নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। মিথ্যাবাদীদের এই দেশ ক্ষমা করবে না।

নরেন্দ্র মোদী যা যা বলেছেন তা সংক্ষেপে তুলে ধরা হল :-

  • জাতীয় উচ্চাশাআর আঞ্চলিক প্রেরণা, এই দুই নিয়েই এগোতে হবে আমাদের। কোনও একটিকে উপেক্ষা করলে চলবে না। এটাই আমাদের নতুন স্লোগান।
  • এনডিএ এখন একটা বিশ্বাসযোগ্য আন্দোলনের নাম।
  • এই দেশের মাতৃশক্তি আমার রক্ষাকবচ। আগে মহিলা ভোটদাতাদের সংখ্যা পুরুষদের ভোটদাতাদের থেকে চার-পাঁচ শতাংশ কম থাকতো। এই নির্বাচনে পুরুষ এবং মহিলা ভোটদাতার সংখ্যা প্রায় সমান। আগামী দিনে মহিলারা পুরুষদের ছাড়িয়ে এগিয়ে যাবে।
  • জনতা জনার্দ্দনই ঈশ্বরের রূপ, তা এইনির্বাচনে অনুভব করলাম। স্বাধীনতার পর এই প্রথম এত বেশি ভোট পড়েছে।
  • এই দেশ পরিশ্রমের, আত্মমর্যাদার পুজো করে। এই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া, রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব।
  • কোটি কোটি মানুষের সংকল্প অনেক বড় কাজ করতে প্রেরণা দেয়। ভারতের জনগণের সংকল্পের প্রমাণ প্রতিভাত হয়েছে নির্বাচনের ফলাফলে।
  • এই নির্বাচনে প্রতিষ্ঠানবিরোধিতা কোনও জায়গা করে নিতে পারেনি। এই নির্বাচন প্রতিষ্ঠানের পক্ষে রায় দিয়েছে। এই নির্বাচন ছিল ইতিবাচক, এই জনাদেশ সব অর্থেই ইতিবাচক।
  • যদি কোনও ভুল হয়, তবে তা মেনে নিয়ে, শুধরে নিয়ে আগে চলতে হবে।
  • সমতা আর মমতা, এই দুই লক্ষ্যেই কাজ করতে হবে।
  • নির্বাচন বিভাজন তৈরি করে। শিবজ্ঞানে জীবসেবাই আমার লক্ষ্য।

ক্ষমতার দম্ভ ভারতের জনগণ সাময়িক ভাবে সহ্য করলেও স্বীকার করে না। ভারতের গণতন্ত্র এতটাই পরিণত। এখন কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলার সময়।

  • দিনের পর দিন আরও মজবুত হচ্ছে ভারতের গণতন্ত্র। ভারতবাসী যে বিপুল জনাদেশ দিয়েছে, তা আমাদের দায়িত্ব অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে।
  • বিশ্বের দরবারে ভারতকে আরও শক্তিশালী প্রতিষ্ঠা করাই আমার লক্ষ্য।
  • ভারতীয় জনতা পার্টির সমস্ত সদস্য, এনডিএশরিক দলের সমস্ত নির্বাচিত সদস্য আমাকে সংসদীয় দলের নেতা নির্বাচিত করায় আমি কৃতজ্ঞ।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment