জেলা 

মুকুলের গাড়ি থেকে পাওয়া খাম দেখিয়ে জ্যোতিপ্রিয়ের দাবি সিপিএমের ভোট কিনতে টাকা দিচ্ছে বিজেপি ; প্রমাণ করুন না হলে মানহানী মামলা করব হঁশিয়ারি মানসের ; ঘন্টায় ঘন্টায় কথা পাল্টান জ্যেতিপ্রিয় দাবি বিজেপির

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বৃহস্পতিবার রাতে দমদমের নাগেরবাজারে বিজেপি নেতা মুকুল রায় ও দমদমের বিজেপি প্রার্থী শমীক ভট্টাচার্যের গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এই ঘটনার পর খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক তৃণমূলের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগকে অস্বীকার করেছিলেন।

এরপরেই আজ শনিবার  গণ্ডগোলের সময় মুকুল রায়ের গাড়ি থেকে একটি খাম পাওয়া যায়। এই খামকে নিয়ে আস্ত একটি সাংবাদিক বৈঠক করে ফেললেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক । ওই খামের উপর কামারহাটির সিপিএম বিধায়ক মানস মুখোপাধ্যায়ের নাম লেখা ছিল। কীভাবে ভোটে বিজেপি “বিভিন্ন জায়গায় টাকা দিচ্ছে”, তার হিসেব খামের মধ্যে রয়েছে বলে দাবি করেন খাদ্যমন্ত্রী। তিনি আরও দাবি করেন, কাদের নামে নির্বাচন কমিশনে রিপোর্ট দায়ের করা হবে এবং আটকে রেখে চালানো হবে নির্বাচন প্রক্রিয়া, তারও নীলনক্সা পাওয়া গেছে খামে। নির্বাচন কমিশন এবং মুখ্যমন্ত্রীর কাছে এই মর্মে তিনি অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানান মন্ত্রী।

জ্যোতিপ্রিয় বলেন, “নাগেরবাজার নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি করা হয়েছে, খামটি আমার কাছে আসে। যেখানে টাকার ডিল হয়েছে, তিন লক্ষ নব্বই হাজার টাকা আপাতত কামারহাটির সিপিএমের বিধায়ককে দেওয়া হয়েছে। দমদম এবং কামারহাটিতে কাদের গ্রেপ্তার করা হবে তাদের নামের তালিকাও তৈরি করা হয়েছে।”

জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের এই বিস্ফোরক মন্তব্যের পর তাঁকে ‘চ্যালেঞ্জ’ ছুড়ে দিয়েছেন কামারহাটির বিধায়ক মানস মুখোপাধ্যায়। ঘটনার কথা অস্বীকার করে মানসবাবুর বলেন, “খামের কথা যেটা উঠেছে, সেটা নতুন কিছু নয়। আমি নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছি যে এরা নির্বাচনের দিন ভোট লুঠ করে।” তৃণমূলকে নিশানা করে সিপিএম প্রার্থী আরও বলেন, “ওরা মনে করে সবই ক্রয়যোগ্য। ক্রয় করে ভোটেও জেতা যায়, ক্রয় করে এমএলএ-ও কেনা যায়। কুৎসা প্রচার করে যাচ্ছে। কমিশনের কাছে মিথ্যা কথা বলার জন্য আমি অভিযোগ করব। জ্যোতিপ্রিয়কে চ্যালেঞ্জ দিলাম, প্রমাণ করে দেখাক যে আমি ওখানে ছিলাম, না পারলে জ্যোতিপ্রিয়র বিরুদ্ধে আমি মানহানির মামলা করব।”

এদিকে , বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার এ বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমকে বলেন , জ্যোতিপ্রিয়বাবুতে ঘন্টায় ঘন্টায় কথা পাল্টান । এত কথা ‍কিসের প্রমাণ থাকে তো কমিশনের গিয়ে অভিযোগ করুক ।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment