কলকাতা 

বহিরাগতদের দিয়ে আগামী কাল ভোটের দিন অশান্তি তৈরি করবে তৃণমূল দাবি বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : “রবিবার নির্বাচনের কাজে ব্যবহার করতে মালদা, মুর্শিদাবাদ, বীরভূম, বাঁকুড়া সহ নানা জেলা থেকে দাগী অপরাধীদের এনে জড়ো করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। ওই অপরাধীদের বিভিন্ন হোটেল, বিয়েবাড়িতে রাখা হয়েছে। সপ্তম দফার নির্বাচনে অশান্তি পাকাতে চাইছে তৃণমূল।” শনিবার হাওড়ায় এক সাংবাদিক বৈঠকে এমনটাই অভিযোগ করেছেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।

বিজেপির রাজ্য দপ্তর কলকাতার ৬ মুরলিধর লেনে অবস্থিত। কিন্তু দলের শীর্ষ নেতৃত্বের একাংশ কলকাতার বাইরের ভোটার। নিয়মানুযায়ী রবিবার তাঁরা কলকাতায় রাজ্য দপ্তরে আসতে পারবেন না। তাই হাওড়ার টিকিয়াপাড়ার বেলিলিয়াস রোডে অস্থায়ী নির্বাচনী দপ্তর করেছে বিজেপি। সেখানে সাংবাদিক বৈঠকে মুকুল রায় অভিযোগ করেন, “রিটার্নিং অফিসার তথা জেলাশাসক সহ পুলিশ-প্রশাসন শাসকদলের দলদাসে পরিণত হয়েছে। যাতে ভোট দিতে না পারে তাই গ্রামের পর গ্রাম থেকে মানুষকে তাড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। শাসকদলের সমাজবিরোধীরা দাপিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।”

রবিবার সাত দফার শেষ দফায় এরাজ্যে নয়টি আসনে নির্বাচন। ইতিমধ্যে উত্তরবঙ্গ, জঙ্গলমহল, দক্ষিণবঙ্গের মোট ৩৩ টি লোকসভা কেন্দ্রে নির্বাচন হয়ে গিয়েছে। রবিবার কলকাতার দুই কেন্দ্র, এবং উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণার লোকসভা আসনে ভোট। তার আগেই নির্বাচনে সন্ত্রাস নিয়ে অভিযোগ করল বিজেপি। নির্বাচন কমিশনের কাছে মুকুল রায়ের দাবি, “শুধু যৌথবাহিনী থাকলেই হবে না। সাধারন মানুষ যাতে নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারে তার জন্য নির্বাচন কমিশনকে উপযুক্ত পদক্ষেপ নিতে হবে।” তাঁর বক্তব্য, “কলকাতাতেও আতঙ্ক বিরাজ করছে। একদিকে যখন শাসকদলের সমাজবিরোধীরা দাপাচ্ছে, ঠিক তখন বিজেপি নেতাদের গ্রেপ্তার করছে পুলিশ। আজ ডায়মন্ড হারবারের ব্লক সভাপতিকে গ্রেপ্তার করেছে। মগরাহাটেও আমাদের দলের নেতাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।”

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment